টেকসই স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গড়তে কাজ করবে আইইবি ও আইসিটি ডিভিশন

jagonews24

সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ এবং ইনস্টিটিউশন অফ ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইইবি) দেশে টেকসই স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গড়ে তুলতে একত্রে কাজ করবে।

বৃহস্পতিবার সেন্ট্রাল অব এক্সিলেন্স অন চতুর্থ শিল্প বিপ্লব এবং শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট ফর ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজিতে যৌথ গবেষণা ও উদ্ভাবনী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আইইবি এবং আইসিটি বিভাগের মধ্যে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) -এর বক্তারা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক অনলাইন ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে যুক্ত ছিলেন আইইবি সভাপতি ও আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো। আবদুস সবুর।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম পিএএ। আইইবির সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মনজুর মোর্শেদ এবং আইসিটি বিভাগের যুগ্ম সম্পাদক মোঃ আক্তারুজ্জান স্বাক্ষরিত এই সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন। অনুষ্ঠানে সিআরআই কো-অর্ডিনেটর ইঞ্জিনিয়ার তন্ময় আহমেদ বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, সরকার ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে প্রকৌশলীদের ভূমিকা অনেক বেশি। আইইবি সেন্টার অফ এক্সিলেন্স অন চতুর্থ শিল্প বিপ্লব এবং শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট ফর ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজিতে এবং প্রশিক্ষণ, গবেষণা ও উদ্ভাবনের কার্যক্রম পরিচালনায় কোর্স পাঠ্যক্রম আপডেট করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে। আইইবি এবং আইসিটি বিভাগ ২০২১ সালের মধ্যে অগ্রণী জ্ঞানের ভিত্তিতে একটি ডিজিটাল বাংলাদেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত জ্ঞানের ভিত্তিতে একটি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে একত্রে কাজ করবে।

ইঞ্জিনিয়ার বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড। আবদুস সবুর বলেছিলেন, “আন্তর্জাতিকভাবে অর্থনৈতিক কূটনীতি ছাড়াও আমাদের বিজ্ঞান কূটনীতি এবং প্রযুক্তি কূটনীতিতে আমাদের দক্ষতা বাড়াতে হবে।” এই কূটনীতিটি আগামী দিনে উন্নত বিশ্বের দেশগুলির সাথে বৈজ্ঞানিক গবেষণায়, নতুন প্রযুক্তি গ্রহণ এবং বিশ্বজুড়ে নিজস্ব প্রযুক্তি ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য একত্রে কাজ করার জন্য একটি শক্তিশালী হাতিয়ার হিসাবে কাজ করবে।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আইইবির কম্পিউটার বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মুহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম ও সেক্রেটারি ইঞ্জিনিয়ার মো। রোনাক আহসান।

এউএ / বিএ