বৃষ্টির ভোগান্তি দিয়ে দিনের শুরু

বৃষ্টি

রাজধানীর পুরান Dhakaাকার নবাবগঞ্জের বাসিন্দা আকবর হোসেন একটি বেসরকারী খাদ্য সংস্থার মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ। তার কাজ হ’ল ধানমন্ডি, কলাবাগান এবং নিউমার্কেটের বিভিন্ন পণ্যাদির চাহিদা অনুযায়ী চালান কাটা এবং ডেলিভারি ভ্যান চালক দ্বারা সরবরাহ নিশ্চিত করা shops দেশে করোনার সংক্রমণের কারণে আগের মতো পণ্যটির চাহিদা নেই। বাড়ি থেকে বেরোনোর ​​সময় তিনি আতঙ্কিত হয়ে বুঝতে পেরে নিজেকে আক্রমণ করেছিলেন।

আকবর হোসেন গত দুদিন ধরে বৃষ্টির বাইরে রয়েছেন। বুধবার তৃতীয় দিনের জন্য তিনি বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন। সকাল সাড়ে ৮ টায় তিনি নীলক্ষেত মোড়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। গত দুদিন তিনি বাড়ি থেকে কিছুটা দেরিতে চলে গেলেন। নিউমার্কেটের সামনে জলাবদ্ধতার কারণে আমাকে 10 টাকায় একটি ভ্যানে বাস স্ট্যান্ডে আসতে হয়েছিল। তাই আমি আজ খুব তাড়াতাড়ি বাইরে গিয়েছিলাম। আকবর হোসেন বলেছিলেন, ‘আজও সকাল শুরু হয়েছিল বৃষ্টির ভোগান্তিতে। সারাদিন কী হবে কে জানে? ‘

আকবর হোসেনের মতো অনেক নগরবাসী সকাল সাতটায় বৃষ্টিপাতের সাথে দিনটি শুরু করেছিলেন। জীবন ও জীবিকার তাগিদে বাড়িতে থাকার কোনও উপায় নেই। সুতরাং অসহায় তারা মাথায় বৃষ্টি নিয়ে স্ব স্ব গন্তব্যে রওয়ানা হলেন। যারা এটি সামর্থ্য করতে পারে তারা ছাতা নিয়ে বেরিয়ে এসেছেন। তবে স্বল্প আয়ের দিন মজুর, রিকশা চালক, গার্মেন্টস কর্মী এবং অন্যরা বৃষ্টিতে ভিজে যাওয়ার হাত থেকে বাঁচতে তাদের মাথায় পলিথিন জড়িয়ে রাখতে দেখা যায়।

বৃষ্টি

আজ সকালে সুরজমিন নিউ মার্কেট, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, ধানমন্ডি, চৌবানবাগ, মানিকমিয়া অ্যাভিনিউ, ফার্মগেট, খামারবাড়ি, কারওয়ান বাজার, হাতিরপুল, বাংলামোটর ও শাহবাগ সহ বিভিন্ন অঞ্চল পরিদর্শন করা হয়েছে। গণপরিবহনে তেমন ভিড় নেই। প্রায় প্রতিটি পরিবহণের বেশিরভাগ আসন খালি রয়েছে। বাসের সাহায্যকারীদের চিত্কার করা এবং যথারীতি যাত্রীদের কল করতে দেখা যায়নি।

তবে প্রবল বর্ষণে বৃষ্টি না হওয়ায় সকাল ৯ টা অবধি মহাসড়কে জলাবদ্ধতা হয়নি। তবে নিউমার্কেট ও ধানমন্ডি ২ 27 নম্বর সহ বেশ কয়েকটি এলাকায় পানি জমে উঠেছে।

বৃষ্টি

এদিকে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা at টায় পরবর্তী চব্বিশ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে যে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি বা অস্থায়ী ঘাসের সাথে বজ্রপাত হতে পারে রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট, Dhakaাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের বেশিরভাগ জায়গায়। বঙ্গোপসাগরে সক্রিয় বর্ষা। একই সাথে, দেশের কিছু জায়গায় মাঝারি থেকে ভারী বা অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

রাজধানী াকায় গতকাল 64৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। সর্বাধিক বৃষ্টিপাত কুমিল্লায়, 183 মিমি। মঙ্গলবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ভোলায়, ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। লো টেকনাফ, 24 ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এমইউ / এসআর / জেআইএম