সুরক্ষানীতি মেনে চলবে গণপরিবহন, ঈদে বাড়ছে না ভাড়া

jagonews24

Transportদুল আজহায় চলবে গণপরিবহন। তবে, সরকারের নির্দেশাবলী, সুরক্ষা নীতি অবশ্যই মেনে চলতে হবে। গণপরিবহনে পর্যাপ্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা থাকতে হবে। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) Eidদ উপলক্ষে নতুন ভাড়া বৃদ্ধির দাবি মানেনি। পরিবর্তে, সংস্থাটি ট্রাফিক অনুমতি শর্তাবলী কঠোরভাবে মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছে।

সোমবার বিআরটিএ অফিসে মালিক ও শ্রমিক সংগঠন, বিআরটিএ, সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বৈঠক করেন। বিআরটিএ দুটি আসন হারের কথা উল্লেখ করে ভাড়া বাড়ানোর দাবি শোনেনি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রক ৩ মে মে প্রজ্ঞাপন জারি করে করোনার সময় ভাড়া 60০ শতাংশ বাড়িয়ে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দিয়েছে। আসন্ন Eidদুল আজহায় এটি ছিল প্রথমে গণপরিবহন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে সুরক্ষা নীতি বাস্তবায়নের শর্তে সরকার গণপরিবহন পরিচালনার সিদ্ধান্ত বহাল রেখেছিল।

হাইজিন নিয়ম অনুসারে এভাবেই theদ যাত্রা হবে (ফাইল ফটো)

বৈঠকে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান রমেশ চন্দ্র ঘোষ জাগো নিউজকে বলেন, বিআরটিএর সাথে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল যে সুরক্ষা নীতি অনুসরণ করে গণপরিবহন চলবে। সুরক্ষা নীতিমালা মেনে চলার জন্য আমরা মালিককে একটি চিঠি পাঠাব।

তিনি আরও বলেছেন, ‘শর্ত অনুযায়ী একটি সিট খালি রেখে বাস চলছে। কিন্তু মালিকরা অর্থ হারাচ্ছেন। যাত্রী কম, lossesদে আরও ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ সেখানে কোনও ফেরত যাত্রী থাকবে না। এভাবে চলা খুব কঠিন। তবে আমরা এটি মেনে চলার এবং প্রয়োগ করার চেষ্টা করব।

jagonews24

হাইজিন নিয়ম অনুসারে এভাবেই theদ যাত্রা হবে (ফাইল ফটো)

উত্তরবঙ্গ রুটের মহাব্যবস্থাপক আবু সালেহ জাগো নিউজকে বলেছেন: “ভাড়া seat০ শতাংশ বৃদ্ধি করা হয়েছে, একটি আসন খালি রেখে দিয়েছে। বাস্তবে, যাত্রীদের অতিরিক্ত অর্থ গণনা করতে হলেও ক্ষতি বহন করা হচ্ছে। মালিকদের দ্বারা।কারণ Dhakaাকা থেকে গাইবান্ধা ভাড়া ৪৫০ টাকা।দুটি আসনে এটির 900 টাকা হওয়া উচিত।কিন্তু শর্ত অনুসারে দুই আসনের ভাড়া 600০০ টাকা। আসন প্রতি ১০০ টাকা হ্রাস করা হয়েছে। সংকটে করোনায় যাত্রী কম। Eidদে আরও বেশি যাত্রী হ্রাস পাবে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে বাসটি চলবে।কিন্তু আমরা মালিকরা কীভাবে চলবে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন। ‘

তিনি আরও বলেছিলেন, ‘কেউ Eidদে বা পোষা প্রাণে বাস চালাবে না। উত্তরবঙ্গে আমাদের গাড়ির ভ্রমণ একশো শতাধিক ছিল। এখন 16 আছে। পরিস্থিতি খুব খারাপ বলা যায়। বিআরটিএ এই জায়গা থেকে অতিরিক্ত ভাড়া দেওয়ার দাবি শোনেনি।

বিআরটিএ সভায় অংশ নেওয়া রোড ট্রান্সপোর্ট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি জেনারেল খন্দকার এনায়েত উল্লাহ জাগো নিউজকে বলেন, “পূর্ববর্তী গাইডলাইন অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব ও সুরক্ষা নিশ্চিত করে transportদে গণপরিবহন অব্যাহত থাকবে।” যেখানে রাস্তায় গর্ত ও ট্রাফিক জ্যাম রয়েছে সেখানে measuresদের আগে অতিরিক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করা হয়েছে। সচিব আরএইচডি, ট্রাফিক বিভাগ এবং হাইওয়ে পুলিশকে বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন।

jagonews24

এ জাতীয় Yদ যাত্রা এবার দেখা যাবে না (ফাইলের ছবি)

বিআরটিএর উপ-পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) মোহাম্মদ আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, গণপরিবহণকে শর্তে পরিচালিত করার নির্দেশ দিয়ে ৩ মে জারি করা বিজ্ঞপ্তিও Eidদে মেনে চলতে হবে। কোনও যাত্রীকে বাস বা মিনিবাসের পাশাপাশি দুটি আসনের একটিতে অবশ্যই বসতে হবে এবং অন্য আসনটি খালি রাখতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি নিয়ম অনুযায়ী শারীরিক এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। কোনও ক্ষেত্রেই সংশ্লিষ্ট মোটরযানের নিবন্ধকরণ শংসাপত্রের উল্লিখিত মোট সংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি বহন করা যাবে না এবং কোনও যাত্রী দাঁড়িয়ে থাকতে পারবেন না।

বিআরটিএর এক প্রবীণ কর্মকর্তা জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, এবার সরকার তিন দিনের বেশি ছাড় দিচ্ছেন না। তদুপরি, সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কাজে থাকতে বলা হয়েছে। এভাবে যাত্রীর সংখ্যা কম। সব মিলিয়ে এবার Eidদকেন্দ্রিক গণপরিবহন কম চাপের হবে। Eidদে যাদের বাড়ি যেতে হবে, তারা যাবে। পরিবহন মালিকরা পোষা প্রাণী চালাবেন যদি। ক্ষতির ক্ষেত্রে চলবে না। তবে ভাড়া আর বাড়ানো যায় না।

jagonews24

এ জাতীয় Yদ যাত্রা এবার দেখা যাবে না (ফাইলের ছবি)

এদিকে, পরিবহন মালিকদের সংগঠন বাস-ট্রাক মালিক সমিতি বলেছে, Eidদের জন্য অগ্রিম টিকিট বিক্রি করার সিদ্ধান্ত হয়নি। অগ্রিম টিকিট প্রতি Eidদের কমপক্ষে 20/25 দিন আগে বিক্রি শুরু হয়। তবে এবার প্রসঙ্গটি সম্পূর্ণ আলাদা। মহামারীটি যেন সব কিছু পরিবর্তন না করে।

৩০ শে জুন রাতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কীভাবে অফিস এবং গণপরিবহন সহ অর্থনৈতিক কার্যক্রম ৩ আগস্ট অবধি পরিচালিত হবে এবং কোন ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞার প্রয়োগ কার্যকর থাকবে সে সম্পর্কে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছিল। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “গণপরিবহন সহ সকল ধরণের যানবাহন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ কর্তৃক জারি করা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে।”

জেইউ / এমএআর / এমএস

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ-বেদনা, সংকট, উদ্বেগের সময় কেটে যাচ্ছে। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজই এটি প্রেরণ করুন – [email protected]