র‍্যাবকে ঘুষ দিতে গিয়ে যুবলীগ নেতাসহ আটক ৬

jagonews24

কুমিল্লায় ঘুষের বিনিময়ে মাদকসহ আটক চার অভিযুক্তকে মুক্তি দেওয়ার চেষ্টা করতে গিয়ে যুবলীগ নেতা সহ ছয়জনকে র‌্যাবের হাতে ধরা পড়ে। সোমবার (10 আগস্ট) রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এই চারজনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দুটি এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) দুপুরে নগরীর শাকতলা এলাকায় র‌্যাব কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব -11-এর সংস্থার কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুস সাকিব এ তথ্য জানান।

এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলা হয়েছে, সোমবার রাতে র‌্যাব -১১ এর একটি দল নগরীর দিগমব্রিতলা এলাকায় এলআর অ্যাপেক্স টাওয়ার নামে একটি ভবনে অভিযান চালিয়ে চার মাদক ব্যবসায়ীকে ৩০৫ পিস ইয়াবা, ১২ টি ক্যান বিয়ার ও Tk০০ টাকা আটক করেছে। নগদ 36,000

আটক করা হচ্ছে- নগরীর মৌলভীপাড়া এলাকার মৃত ফরিদ মিয়ার ছেলে মো। শহীদুজ্জামান সজীব (২৮), কাপ্তান বাজার এলাকার জহিরুল ইসলামের ছেলে জুবায়েরুল হক ওরফে নিপু (৩১), শাকিল বিন জলিল (৩০) বজরাপুর এলাকার মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে এবং আবুল হোসেন ভূঁইয়া (৩৮) মৃত আবদুল জলিল ভূঁইয়ার ছেলে। বুড়িচং উপজেলার জিয়াপুর গ্রাম।

মেজর তালুকদার নাজমুস সাকিব জানান, চার অভিযুক্তকে মুক্তি দিতে সোমবার রাতে মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য বোরহান মাহমুদ কামরুলসহ ছয়জন র‌্যাব কার্যালয়ে এসেছিলেন। তারা র‌্যাবকে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে মাদকসহ আটক হওয়া চার আসামিকে মুক্তি দেওয়ার জন্য অনুরোধ করে। এ সময় তাদের আটকও করা হয়েছিল।

আটক করা হচ্ছে সদর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে বোরহান মাহমুদ কামরুল (৪৮) ও নগরীর কাপ্তনবাজার এলাকার মৃত ইউনুস মুন্সির ছেলে মোঃ ইউনুস মুন্সী। জহিরুল হক (64৪), ইফতেখারুল কবির (১৮), মৌলভীপাড়া এলাকার আহমেদুল কবিরের ছেলে, ফয়েজ আহমেদ ওরফে অপু (৪০), মৃত ফরিদ আহমেদের ছেলে, মোঃ আব্দুল বারেক ছোটা এলাকার ছেলে। নিয়ামুল হক (৩০) ও আমজাদ হোসেন (৩৮) সদর উপজেলার ইলাশপুর গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে।

র‌্যাব -11-এর সংস্থার কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুস শাকিব জানান, মাদক সহ গ্রেপ্তার হওয়া চার আসামি কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ইয়াবা কেনা বেচা করছিলেন। ঘুষ দেওয়ার চেষ্টায় আরও ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। চারজনকে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের আওতায় এবং ছয়জনকে দুর্নীতি দমন কমিশন ঘুষ দেওয়ার চেষ্টা করার অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

কামাল উদ্দিন / আরএআর / এমকেএইচ