২১ জন নিখোঁজের খবর গুজব, খালে পড়া বাসের ভেতর কেউ নেই

jagonews24

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার লক্ষণশ্রী ইউনিয়নের জানিগাঁও অঞ্চলে খালে পড়ে যাওয়া বাসের ভেতর কাউকে পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে, ২১ জন যাত্রী নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও উদ্ধার অভিযানের শেষে আর কাউকে পাওয়া যায়নি। গুজব ছিল যে 21 জন নিখোঁজ রয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) সকালে সিলেট থেকে সুনামগঞ্জ যাওয়ার পথে বাসটি একটি খালে পড়ে যায়। ‘বাসে 25-26 যাত্রী ছিল; তাদের মধ্যে চারটি তীরে সাঁতার কাটতে পেরেছিল, তবে বাকিরা এখনও নিখোঁজ রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। তবে উদ্ধারকাজ শেষে কোনও লাশ বা নিখোঁজ ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া যায়নি।

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে সিলেট থেকে সুনামগঞ্জ যাওয়ার পথে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার লক্ষ্মণশ্রী ইউনিয়নের জানিগাঁও এলাকায় একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খালে পড়ে যায়। বাসে 25-26 যাত্রী ছিল; তাদের মধ্যে চারটি তীরে সাঁতার কাটতে সক্ষম হয়েছে, তবে বাকিরা এখনও নিখোঁজ রয়েছে বলে স্থানীয়রা ফায়ার সার্ভিসকে জানিয়েছেন। স্থানীয়দের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট সকালে উদ্ধার কাজ শুরু করে। তাদের সাথে সিলেট থেকে আসা ডাইভারের একটি দল যোগ দিয়েছিল। চার ঘণ্টার অভিযানের পরেও বাসের ভিতরে বা খালে কোনও যাত্রী পাওয়া যায়নি। ফায়ার সার্ভিস এবং ডুবুরিরা পরে অভিযান শেষ করার ঘোষণা দেয়।

জেলা বাস মালিক সমিতির তথ্যমতে, সিলেট থেকে সুনামগঞ্জগামী বাসে চালক ও হেলপার সহ ২০ জন যাত্রী ছিলেন। সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক ধরে পাগলা ও দিরাই রোড এলাকায় বারো জন যাত্রীকে নামানো হয়েছে। পরে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সদর উপজেলার লক্ষণশ্রী ইউনিয়নের জানিগাঁও এলাকায় একটি খালে পড়ে যায়। এ সময় চালক-হেলপার পালিয়ে যায়। আহত হয়েছেন অপর ছয় যাত্রী। তাদের সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

জেলা বাস-মিনিবাস-মাইক্রোবাস মালিক সমিতির সভাপতি মোজাম্মেল হক জানান, সকালে বাসটি সিলেট থেকে সুনামগঞ্জ যাচ্ছিল। পথে কিছু যাত্রীকে গন্তব্যে ফেলে দেওয়া হয়েছিল। সুনামগঞ্জ যাওয়ার পথে ছয় যাত্রী নিয়ে বাসটি খালে পড়ে যায়। এ সময় চালক-হেলপার পালিয়ে যায়। আহত হয়েছেন ছয় যাত্রী। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক শফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, একটি বাস খালে পড়েছিল বলে স্থানীয়রা আমাদের ডেকেছিল। বাসে 25-26 যাত্রী ছিল; তাদের মধ্যে চারটি তীরে সাঁতরে গেলেও বাকী নিখোঁজ রয়েছে। স্থানীয়দের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট সকালে উদ্ধার কাজ শুরু করে। তাদের সাথে সিলেট থেকে আসা ডাইভারের একটি দল যোগ দিয়েছিল। চার ঘণ্টার অভিযানের পরেও বাসের ভিতরে বা খালে কোনও যাত্রী পাওয়া যায়নি। ফায়ার সার্ভিস এবং ডুবুরিরা পরে অভিযান শেষ করার ঘোষণা দেয়। গুজব ছিল যে 21 জন নিখোঁজ রয়েছে।

সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ আবদুল আহাদ বলেছেন, “আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বাস দুর্ঘটনায় ছয়জন আহত হয়েছেন। তাদের সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ইতোমধ্যে তিনজন চিকিৎসা নিয়ে দেশে ফিরেছেন। বাকি তিনজনের চিকিৎসা চলছে। বাসের ভিতরে কোনও লাশ বা লাশ পাওয়া যায়নি।

মোসাইদ রাহাত / এএম / এমএস