করোনায় আক্রান্তে মুসলিম দেশগুলোর শীর্ষে তুরস্ক

করোনায় আক্রান্তে মুসলিম দেশগুলোর শীর্ষে তুরস্ক

আঙ্কারা, ২ April এপ্রিল – তুরস্কের রবিবার গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে মারাত্মক করোনভাইরাসটিতে ৫০ হাজারেরও বেশি লোক আহত হয়েছেন। এর মাধ্যমে, দেশে ক্ষতিগ্রস্থ মোট লোক সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে 6,900।

ফলস্বরূপ, তুরস্ক ইরানের উপর হামলার তালিকায় মুসলিম দেশগুলির শীর্ষে উঠে এসেছে। তবে মৃতের সংখ্যাতে ইরান এখনও মুসলিম বিশ্বের শীর্ষে রয়েছে। সেখানে মোট 12,220 জন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল এবং মোট 5,900 জন মারা গিয়েছিল।

তুরস্কে গত কয়েকদিন ধরে করোনার আক্রমণ সংখ্যা ক্রমাগত বেড়েছে। রবিবার শেষ চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে করোনাস দ্বারা আক্রান্ত 3,000 3 জন ছিল। এর আগে শনিবার দেশটিতে করোনার আক্রমণ হয়েছিল তিন হাজার।

তুরস্কে রোববার করোনায় আরও ১২০ জন নিহত হয়েছেন। ফলস্বরূপ, মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই হাজারে। দেশে মোট ৫,৮০০ জন লোক রয়েছে।

এ সম্পর্কে তুরস্কের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহেরেটিন কোকা বলেছেন, করোনার পরীক্ষার হার বৃদ্ধির ফলে নতুন ভুক্তভোগীর সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে। শনিবার অবধি প্রায় ১ মিলিয়ন লোক পরীক্ষা করা হয়েছে।

সর্বশেষ করোনাভাইরাস পরিসংখ্যান ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার টেলি অনুসারে তুরস্ক করোনাস দ্বারা প্রভাবিত শীর্ষ দশ দেশের তালিকায় সপ্তম স্থানে উঠে এসেছে। তুরস্কের পরে চীন ও ইরান যথাক্রমে মধ্য প্রাচ্যের অন্যান্য দেশ।

চীনে এখনও পর্যন্ত করোনাসে 12,900 লোক আক্রান্ত হয়েছে এবং 8,12 জন মারা গেছে। অন্যদিকে, ইরানে, 12,239 জন লোক আক্রান্ত হয়েছে।

৮ ই মার্চ তুরস্কে প্রথম একজন করোনারি রোগীকে সনাক্ত করা হয়। প্রায় এক মাস পরে, ৪ এপ্রিল, ২ হাজার 5০০ লোক আক্রমণ করেছিল। 5 এপ্রিল 9,8 জনকে চিহ্নিত করা হয়েছিল। যদিও হামলার সংখ্যা কিছুটা কমেছে, দেশে প্রতিদিন কমপক্ষে ৪০ হাজার মানুষ আক্রমণ করা হচ্ছে।

ইতোমধ্যে তুরস্ক করোনারি সংক্রমণ রোধে দেশের পাঁচটি প্রদেশে আরও পাঁচ দিনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বাড়িয়েছে। বন্ধ হয়ে গেছে দেশের সব স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও মসজিদ। আঙ্কারা ভাইরাসের বিস্তার রোধ করতে অনেক দেশের সাথে বিমানও বন্ধ করে দিয়েছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এমএন / 25 এপ্রিল

Leave a Reply