ডিএসিএ বাতিলে ট্রাম্পের চেষ্টা আটকে দিল মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট

usa

বৈধ কাগজপত্রহীন তরুণ অভিবাসীদের ফেরত পাঠানোর ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচেষ্টা আটকে দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। ওবামার আমলে চালু হওয়া ‘ডিফার্ড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইভালস’ বা ডিএসিএ বাতিলের পরিকল্পনা ‘বেআইনি’ বলে ঘোষণা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আদালত।

বৃহস্পতিবারের এ রুলের ফলে অন্তত সাড়ে ছয় লাখ তরুণ অভিবাসী বা ড্রিমার, যারা শিশু বয়সে বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছিলেন, তাদের দেশটিতে বসবাস ও কাজ করার অনুমতি বহাল থাকল।

২০১২ সালে ওবামা প্রশাসন তরুণ অভিবাসীদের জন্য এ সুবিধা চালু করেছিল। তবে ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ডিএসিএ বাতিলের জন্য উঠে পড়ে লাগেন। পরে বিষয়টি গড়ায় আদালত পর্যন্ত। ট্রাম্প প্রশাসন কেন ডিএসিএ বাতিল করতে চায় সে বিষয়ে উপযুক্ত ব্যাখ্যা না থাকার কারণে সেসময় এ বিষয়ে রুল জানি করেন নিম্ন আদালত। বৃহস্পতিবার নিম্ন আদালতের সিদ্ধান্তেই অটল থাকার ঘোষণা দেন মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট।

এদিকে, পুনর্নির্বাচনের আগে সুপ্রিম কোর্টের এমন সিদ্ধান্তে বড় ধাক্কা খেলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। কারণ ডিএসিএ বাতিলের ইস্যুটি তার নির্বাচনী প্রচারণার অন্যতম হাতিয়ার ছিল। এ কাজে বাধা পেয়ে সুপ্রিম কোর্টের ওপরই চটেছেন ট্রাম্প।

একাধিক টুইটে আদালতের এই সিদ্ধান্তকে রক্ষণশীলদের মুখে ‘শটগান বিস্ফোরণ’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। আরও রক্ষণশীল বিচারপতি নিয়োগের জন্য তাকে ভোট দেয়ারও আহ্বান জানিয়েছেন ট্রাম্প।

সূত্র: বিবিসি

কেএএ/এমএস

.