মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখতে গণমাধ্যমের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

DU1

স্পিকার ডঃ শিরিন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখতে দেশের গণমাধ্যমের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এর স্বীকৃতিস্বরূপ, মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর পরিশ্রমী, সাহসী ও নিবেদিত সাংবাদিক ও নির্মাতাদের ‘বজলুর রহমান স্মৃতি পদক’ প্রদানের ব্যবস্থা করেছে; যা সত্যই অনন্য।

মঙ্গলবার মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের সেমিনার কক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সাংবাদিকতার জন্য ‘বজলুর রহমান স্মৃতি পদক -২০১৮’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

জুরি বোর্ডের সভাপতি অধ্যাপক আ আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি ও সদস্য সচিব সারা যাকের।

স্পিকার বলেন, দৈনিক সংবাদের ডেথ সম্পাদক বজলুর রহমান মহান মুক্তিযুদ্ধের সফল সংগঠক ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের রূপান্তরকালীন সময়ে তিনি ‘মুক্তিযুদ্ধ’ নামক একটি বহুল প্রচারিত পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন। তাই তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ‘বজলুর রহমান স্মৃতি পদক’ প্রবর্তনের সিদ্ধান্তটি ন্যায্য।

দৈনিক মুক্তাবাদ, গাজীপুর স্টাফ রিপোর্টার এজাজ আহমেদ মিলন এবং চ্যানেল -৪৪ এর অপরাধ ও তদন্ত বিভাগের বিশেষ সংবাদদাতা জিএম ফয়সাল আলম মুক্তিযুদ্ধের বিষয়ে বিশেষ কাজের জন্য প্রিন্ট মিডিয়া এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়া 2019 এর সেরা প্রতিবেদকের পদক অর্জন করেছেন। এ জন্য শিরীন শারমিন চৌধুরী তাদের আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, যারা মুক্তিযুদ্ধ সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে কাজ করছেন তারা জাতীয় জীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। তিনি প্রজন্মান্তরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেওয়ার উপর জোর দিয়েছিলেন।

তিনি করোনার সময়কালের সঙ্কটের সময়েও সক্রিয় থাকার জন্য এবং 2019 এর পুরষ্কার অনুষ্ঠানের আয়োজন করার জন্য মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, কৃষি মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ও সাবেক কৃষিমন্ত্রী, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্ট অ্যান্ড জুরির সদস্য, দেশবরেণ্য সাংবাদিক এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

এইচএস / এনএফ / এমএস