কুমিল্লায় করোনার ভুয়া রিপোর্ট তৈরির কারখানার সন্ধান

jagonews24

কুমিল্লায় র‌্যাব করোনাভাইরাস, প্রশংসাপত্র, জাতীয় পরিচয়পত্রের জাল রিপোর্টসহ সব ধরণের জাল সার্টিফিকেট তৈরির একটি কারখানা পেয়েছে।

রবিবার দুপুরে জেলার চান্দিনা বাজারে বিসমিল্লাহ এন্টারপ্রাইজ নামে একটি কারখানায় অভিযান চালিয়ে মোর্শেদ আলম নামে এক প্রতারককে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব -১১।

এসময় তার কাছ থেকে জাল রিপোর্টসহ বিভিন্ন শংসাপত্র তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। বিকেলে নগরীর শাকতলা এলাকায় র‌্যাব -11 কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানানো হয়।

র‌্যাব জানিয়েছে, জেলার চান্দিনা বাজারের ব্যবসায়ী মোর্শেদ আলম দীর্ঘদিন ধরে একটি কম্পিউটারে ফটোশপ ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরণের সার্টিফিকেট তৈরি করে অর্থের জন্য সরবরাহ করছিলেন। সম্প্রতি করোনার ল্যাব এইড শংসাপত্র জাল করে জাল রিপোর্ট দিচ্ছিল।

এমন তথ্যের ভিত্তিতে মোর্শেদ আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এ সময় তিনি একটি সিপিইউ, ১ টি মনিটর, ১ টি রঙিন প্রিন্টার, ১ টি কীবোর্ড, ১ টি মাউস, ১ টি স্ক্যানার, ১ টি ইন্টারনেট মডেম, ৩ টি পেন ড্রাইভ, ২ টি মোবাইল, নকল করোনারের শংসাপত্র এবং বিভিন্ন জাল শংসাপত্র, নকল জাতীয় পরিচয়পত্র এবং নগদ ব্যবহার করেছেন জালিয়াতির মাধ্যমে পুনরুদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তার মোর্শেদ আলম জেলার দেবিদ্বার উপজেলার জাফরাবাদ গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে।

কুমিল্লায় র‌্যাব -11-এর সংস্থার কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুস শাকিব বলেন, গ্রেপ্তার মোর্শেদ আলম করোনার ভাইরাসের মিথ্যা প্রতিবেদন দেওয়ার নামে লোকজনকে প্রতারণা করে আসছিল। এসএসসি / দাখিল, এইচএসসি, অনার্স, মাস্টার্স সহ ভুয়া শংসাপত্র তৈরি করে তিনি জনগণের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অবৈধ অর্থ পাচার করেছিলেন। এ জাতীয় চক্রের বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

কামাল উদ্দিন / এমএএস / এমকেএইচ