গণস্বাস্থ্যের কিটের কার্যকারিতা যাচাইয়ে বিএসএমএমইউর কমিটি

গণস্বাস্থ্যের কিটের কার্যকারিতা যাচাইয়ে বিএসএমএমইউর কমিটি

Dhakaাকা, মে ২ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম) “জনস্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্ভাবিত করোনভাইরাস (কোভিড -১৯) সংক্রমণ নির্ণয়ের জিআর ‘কোভিড -১৯.ব্ল্যাট’ কিটের কার্যকারিতা যাচাইয়ের জন্য একটি আট সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে । শনিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ কর্তৃক এই কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক কনক কান্তি বড়ুয়া এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

একটি সূত্র জানায়, বিএসএমএমইউর ভাইরোলজি বিভাগের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রফেসর ড। শাহিনা তাবাসসুমকে প্রধান তদন্তকারী করা হয়েছে। সহ-তদন্তকারী হিসাবে 5 জন রয়েছেন। তারা হলেন: মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আহমেদ আবু সালেহ, ভাইরাসোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক সাইফ উল্লাহ মুন্সী, অভ্যন্তরীণ মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড। মোঃ তানভীর ইসলাম, জনস্বাস্থ্য ও তথ্য বিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক ড। ফারিহা হাসিন, ফার্মাকোলজির সহকারী অধ্যাপক ড। শরদিন্দু কান্তি সিং।

জনস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ড। জাফরুল্লাহ চৌধুরী জানান, তারা আজ (শনিবার) কমিটি গঠন করেছেন। আগামীকাল (রবিবার) আমাদের সাথে বসে থাকতে পারে। তারপরে আমরা তাদের চাহিদা অনুযায়ী কিট সরবরাহ করব।

এর আগে ২৯ এপ্রিল, ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর জনস্বাস্থ্যের কিটের কার্যকারিতা যাচাই করার অনুমতি দিয়েছে। বঙ্গবন্ধু মেডিকেল ছাড়াও আইসিডিডিআরবি (আন্তর্জাতিক ডায়রিয়া গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশ) এই কিটের কার্যকারিতা যাচাই করার সুযোগ পেয়েছে।

ঘটনাচক্রে, কিটটি 25 এপ্রিল সরকারের কাছে হস্তান্তরিত হওয়ার কথা ছিল। তবে জনস্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে যথাযথ প্রোটোকল না মানার কারণে কেউ ওষুধ প্রশাসনের কাছ থেকে কিটটি গ্রহণ করতে সক্ষম হয় নি দিন.

সূত্র: যুগান্তর
এমএন / 02 মে

Leave a Reply