চীন-ভারত: সামরিক শক্তিতে কে এগিয়ে?

jagonews24

লাদাখ সীমান্তে সোমবার রাতের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ভারতের অন্তত ২০ জওয়ান প্রাণ হারিয়েছেন। চীনা বাহিনীরও কমপক্ষে ৪৩ জন হতাহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। দু’পক্ষেই এখন ‘যুদ্ধ, যুদ্ধ’ রব। যেকোনও সময় শুরু হয়ে যেতে পারে আরও বড় সংঘর্ষ। সত্যিই যদি যুদ্ধ লেগে যায় চীন-ভারতের মধ্যে তবে কে জিতবে তা সময়ই বলে দেবে। তবে এই মুহূর্তে সামরিক শক্তিতে কে কতটা এগিয়ে তা থেকে কিন্তু কিছুটা আন্দাজ করা যায়।

একনজরে দেখে নেয়া যায় সামরিক শক্তিতে চীন ও ভারতের মধ্যে পার্থক্য কতটুকু-

পিডব্লিউআর ব়্যাঙ্কিং
সামরিক শক্তির এই ব়্যাঙ্কিংয়ে ভারতের চেয়ে এক ধাপ এগিয়ে চীন৷ যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার পরে, অর্থাৎ এ তালিকায় তিন নম্বরে রয়েছে দেশটি। তবে ভারতও খুব একটা পিছিয়ে নেই। চীনের পরেই, অর্থাৎ চার নম্বরে রয়েছে তারা৷

সক্রিয় সেনাসদস্য
চীনের সেনাসদস্য রয়েছে মোট ২১ লাখ ২৩ হাজার, ভারতের ১৪ লাখ ৪৪ হাজার। তবে রিজার্ভ সৈন্যের সংখ্যায় ভারত এগিয়ে৷ চীনের ৫ লাখ ১০ হাজারের বিপরীতে তাদের রয়েছে ২১ লাখ রিজার্ভ সৈন্য৷

প্রতিরক্ষা বাজেট
প্রতিরক্ষা খাতের বাজেটে ভারতের চেয়ে কয়েকগুণ এগিয়ে চীন। চীনের ২ হাজার ৩৭০ কোটি ডলারের বিপরীতে ভারতের প্রতিরক্ষা বাজেট মাত্র ৬১০ কোটি ডলার৷

এয়ারক্রাফট
এখানেও অনেকটাই এগিয়ে চীন। তাদের এয়ারক্রাফট রয়েছে ৩ হাজার ২১০টি। ভারতের রয়েছে ২ হাজার ১২৩টি।

যুদ্ধজাহাজ
চীনের যুদ্ধজাহাজ রয়েছে ৭৭৭টি, ভারতের ২৮৫টি।

যুদ্ধবিমান
যুদ্ধবিমানের সংখ্যায় দ্বিগুণেরও বেশি এগিয়ে চীন। তাদের ১ হাজার ২৩২টি যুদ্ধবিমানের বিপরীতে ভারতের রয়েছে ৫৩৮টি৷

হেলিকপ্টার
চীনের হেলিকপ্টার ৯১১টি, ভারতের ৭২২টি৷

ট্যাংক
ট্যাংকের সংখ্যায় বেশ এগিয়ে ভারত। চীনের ট্যাংক য়েছে ৩ হাজার ৫০০টি আর ভারতের ৪ হাজার ২৯২টি৷

সাঁজোয়া যান
চীনের সাঁজোয়া যানবাহনের সংখ্যা ৩৩ হাজার, ভারতের ৮ হাজার ৬৮৬টি৷

স্বয়ংক্রিয় আর্টিলারি
এখানে দুই দেশের মধ্যে তুলনাই চলে না৷ চীনের স্বয়ংক্রিয় আর্টিলারি রয়েছে ৩ হাজার ৮০০টি, ভারতের মাত্র ২৩৫টি৷

ফিল্ড আর্টিলারি
এখানে চীনের চেয়ে সামান্য এগিয়ে ভারত৷ চীনের ৩ হাজার ৮০০টির বিপরীতে ভারতের ফিল্ড আর্টিলারি
রয়েছে ৪ হাজার ৬০টি।

রকেট প্রজেক্টর
এখানেও যোজন যোজন এগিয়ে চীন। তাদের রকেট প্রজেক্টর ২ হাজার ৬৫০টি, ভারতের মোটে ২৬৬টি৷

সাবমেরিন
ভারতের চেয়ে চীনের সাবমেরিন প্রায় পাঁচগুণ বেশি। চীনের সাবমেরিন ৭৪টি, সেখানে ভারতের রয়েছে মাত্র ১৬টি।

বিমানবাহী জাহাজ
চীনের বিমানবাহী জাহাজ রয়েছে দু’টি, ভারতের একটি৷

ডেস্ট্রয়ার
চীনের ৩৬টি ডেস্ট্রয়ারের বিপরীতে ভারতের রয়েছে ১০টি৷

jagonews24

ফ্রিগেট
চীনের ৫২টি। তার ঠিক চার ভাগের এক ভাগ, অর্থাৎ ১৩টি ফ্রিগেট ভারতের ৷

রণতরি
চীনের রণতরি ৫০টি, ভারতের ১৯টি৷

উপকূলীয় টহল
চীনের ২২০, ভারতের ১৩৯৷

বিমানবন্দর
চীনের মোট ৫০৭টি বিমানবন্দর রয়েছে, ভারতের ৩৪৭টি৷

নৌবন্দর ও টার্মিনাল
এখানেও এগিয়ে চীন। তাদের নৌবন্দর ও টার্মিনাল ২২টি। ভারতের রয়েছে মোট ১৩টি।

সূত্র: গ্লোবাল ফায়ারপাওয়ার ডটকম, ডয়চে ভেলে
কেএএ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন – [email protected]

.