নবাবগঞ্জে এক এলাকায় ৪ জন আক্রান্ত, ৩০ পরিবার কোয়ারেন্টাইনে

নবাবগঞ্জে এক এলাকায় ৪ জন আক্রান্ত, ৩০ পরিবার কোয়ারেন্টাইনে

.াকা, ২ April এপ্রিল – উপজেলা প্রশাসন নবাবগঞ্জ উপজেলার চুনাইন ইউনিয়ন এলাকায় চারটি করোন ভাইরাস ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার কারণে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারসহ প্রায় চার পরিবারের সদস্যদের কোয়ারান্টাইনকে পৃথকীকরণের নির্দেশ দিয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এএইচএম সালাউদ্দিন মঞ্জু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্থদের পরিবারসহ চার পরিবারের সদস্যদের এই অঞ্চলটি চারটি করোন ভাইরাস দ্বারা সংক্রামিত হওয়ার পরে বাড়ির কোয়ারান্টিনে থাকার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এলাকায় প্রায় 4 পরিবারের সদস্যদের চলাচলও সীমাবদ্ধ করা হয়েছে।

হোম কোয়ারান্টাইন ব্যানার একটি লাল পতাকা সঙ্গে চিহ্নিত করা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাড়ির কোয়ারানটাইন নিশ্চিত করতে সকল প্রকার সহযোগিতা করা হবে। এটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সদস্যদের সব দিক থেকে সহযোগিতা করার নির্দেশ দেয়।

ইউএনও জানিয়েছে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলে চিকিত্সা সংক্রান্ত সমস্যাগুলি খতিয়ে দেখছে এবং উপজেলা প্রশাসন অন্যান্য বিষয় খতিয়ে দেখবে, ইউএনও জানিয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা। হোরোগোবিন্দ সরকার অনুপ জানান, আজ দুজনসহ চারজন করোন ভাইরাস সংক্রামিত হয়েছিল। এর মধ্যে বাবা-মাও রয়েছেন। এই উপজেলায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের সংখ্যা পাঁচটি বেড়েছে। এর মধ্যে চুরাইন ইউনিয়নের মুন্সীনগর এলাকার চারজন বাবা-মা ও শিশু।

তারা একই কারখানায় কাজ করত। কারখানা থেকে তারা সংক্রামিত বলে ধারণা করা হচ্ছে। অন্যটি গোবিন্দপুর গ্রামের।

এ উপজেলা থেকে এখন পর্যন্ত ৪ টি নমুনা আইইডিসিআরে প্রেরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে 5 জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম, সৌদি আরবের অভিবাসী জনগোষ্ঠী সুস্থ হয়ে দেশে ফিরে এসেছেন।

সূত্র: জাগোনিউজ

আর / 5: 1/21 এপ্রিল

Leave a Reply