মানববন্ধনে হামলা, মোস্তাফিজের এমপি পদ বাতিলের দাবি

ctg2.jpg

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধনে হামলার ঘটনায় বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর সংসদ সদস্য পদ বাতিলের দাবি জানিয়ে মুক্তিযোদ্ধা সোনতান কমান্ডের চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা শাখা।

মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) প্রেসক্লাব চত্বরে একটি বিক্ষোভ সমাবেশে এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি করা হয়। মুক্তিযোদ্ধা সোনতান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা শাখা বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে।

এ সময় সংসদের প্রতিমূর্তি পুড়িয়ে দেওয়া হয় এবং নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়।

জনসভায় কেন্দ্রীয় যুব লীগের প্রাক্তন প্রেসিডিয়াম সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মাহমুদুল হক সমাবেশে বলেছিলেন, “১৯ul৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদ করার জন্য মৌলভী সৈয়দ রক্ত ​​দিয়েছিলেন।” আজ বাঁশখালীর সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী তার পরিবারকে আক্রমণ করছেন। গত সোমবার আমরা শান্তিপূর্ণভাবে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে হাতছাড়া করছিলাম। হঠাৎ তাঁর পেটোয়া বাহিনী মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণ করে। আমি এই জঘন্য আক্রমণের তীব্র নিন্দা জানাই। আমি প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি যে এই এমপি’র আসনটি এই জঘন্য কাজটি পরিচালনা করেছেন, তা বাতিল করতে। ‘

চট্টগ্রাম মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমেদ বলেছিলেন, “প্রেসক্লাবের মতো জায়গায় মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণ করা অকল্পনীয় নয়। একজন সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণ করার সাহস করবেন কীভাবে? সকল মুক্তিযোদ্ধার সাথে আমি প্রধানমন্ত্রীকে সদস্যপদ বাতিলের দাবি করছি। এই সংসদ সদস্য এবং তাকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করুন। ‘

মুক্তিযোদ্ধা সোঁতনের সাংসদ ও প্রাক্তন মন্ত্রী জহুর আহমেদ চৌধুরীর ছেলে জসিম উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, “বাঁশখালীতে মৌলভী সৈয়দ আহমেদ ও সুলতানুল কবির চৌধুরী আওয়ামী লীগকে শক্ত ভিত্তি না দিতেন তাহলে আপনি মোস্তাফিজ এমপি হতে পারতেন না।” সুলতানুল কবির চৌধুরী না থাকায় আজ আপনি জননেতা হয়েছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের সমাবেশে হামলার জবাব দিতে হবে।

ctg2.jpg

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ বলেছেন, আমরা মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমণে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য এমপি মোস্তাফিজের এমপি পদ বিলুপ্তির দাবিকে সমর্থন করি।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (অর্থ) আবদুর রাজ্জাক, মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ, কোতোয়ালি থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাসান মনসুর, মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি, ড। জয়নাল আবেদীন, মৌলভী সৈয়দের ভাতিজা, কমান্ডের বাঁশোলি আহ্বায়ক ফয়সাল জামিল চৌধুরী সাকি প্রমুখ।

সমাবেশে মুক্তিযোদ্ধা সোনান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা নেতৃবৃন্দ, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ, হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ ও ওমরগনি এমইএস কলেজ ছাত্রলীগের সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

আবু আজাদ / এএইচ / এমএস