শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিএসএমএমইউ উপাচার্যের শ্রদ্ধা

বিএসএমএমইউ-02.jpg

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় ছেলে শেখ কামালের st১ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আজ (৫ আগস্ট) ধানমন্ডির আবাহনী মাঠ সংলগ্ন আবাহনী ক্লাব প্রাঙ্গণে ড। কনক কান্তি বড়ুয়ার নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছিল।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড। মুহাম্মদ রফিকুল আলম, উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ড। মোঃ জাহিদ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড। মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, প্রক্টর অধ্যাপক ড। সৈয়দ মোজাফফর আহমেদ, সহকারী প্রক্টর ও সহযোগী অধ্যাপক ড। কে এম তারিকুল ইসলাম প্রমুখ।

পুষ্পস্তবক অর্পণের পর কনক কান্তি বড়ুয়া সহ উপস্থিত উপাচার্য অধ্যাপক অন্যরা শহীদ শেখ কামালের প্রতিকৃতির সামনে দাঁড়িয়ে এক মুহূর্ত নীরবতা পালন করেন।

উল্লেখ্য যে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় ছেলে, ক্রীড়া সংগঠক, মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ শেখ কামাল ১৯৪৯ সালের ৫ আগস্ট গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য ছিলেন। ১৯ 19৯ সালের গণঅভ্যুত্থান এবং একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা পালন করেছিলেন। তিনি স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম যুদ্ধ কোর্সে প্রশিক্ষণ পেয়েছিলেন এবং মুক্তিযুদ্ধে কমিশন লাভ করেছিলেন। অভিনেতা হিসেবে Dhakaাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও তিনি সুপ্রতিষ্ঠিত ছিলেন। শৈশবকাল থেকেই তাঁর ফুটবল, ক্রিকেট, হকি এবং বাস্কেটবল সহ বিভিন্ন খেলাতে প্রচুর ভালবাসা, আগ্রহ এবং আগ্রহ ছিল। বহুমুখী যুবকের এক উজ্জ্বল প্রতীক শহীদ শেখ কামাল ছিলেন উপমহাদেশের অন্যতম সেরা ক্রীড়া সংগঠক, আবাহনী স্পোর্টস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা, বাংলাদেশের আধুনিক ফুটবলের প্রবর্তক। তিনি শিল্প, সাহিত্য এবং সংস্কৃতির ক্ষেত্রে যুক্ত হতে পছন্দ করেছিলেন। সে ছায়ানটের সেতা প্লে বিভাগের ছাত্র ছিল। Shaheedাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞানে বিএ অনার্স পাস করা শহীদ শেখ কামাল সামাজিক চেতনায় পিছিয়ে পড়া মানুষকে অনুপ্রাণিত করার জন্য মঞ্চ নাটক আন্দোলনের অন্যতম শীর্ষ সংগঠক ছিলেন।

এমইউ / এমএআর / এমএস