এবার শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ালেন পুলিশের নায়েক সফি

shylet-(1)

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় বিশ্ব এখন দিশেহারা। করোনার সংক্রমণের কারণে সিলেটে কর্মহীন হয়ে পড়ায় নিম্নবিত্ত তো বটেই মধ্যবিত্তরাও সঙ্কটে পড়েছেন। কারও কাছে হাত পাততেও পারছেন না অনেকে।

এমন পরিস্থিতিতে মানবতার ডাকে সাড়া দিয়ে দিনরাত সিলেটের বিভিন্ন প্রান্তে ছুটে চলেছেন সিলেট মহানগর পুলিশের নায়েক সফি আহমদ। সাধ্যমতো সহায়তা তুলে দিচ্ছেন দুর্দশাগ্রস্ত পরিবারের হাতে। অনেকটা নীরবে তিনি এই তৎপরতা চালালেও ইতোমধ্যে তিনি ‘মানবতার ফেরিওয়ালা’ হিসেবে পরিচিত হয়ে উঠেছেন অসহায় মানুষদের কাছে।

মো. সফি আহমেদ সিলেট মহানগর পুলিশের নায়েক পদে কর্মরত। বর্তমানে তিনি মহানগর পুলিশের মিডিয়া ও কমিউনিটি সার্ভিস বিভাগে কর্মরত আছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) বিকেলে সিলেট নগরের ঘাসিটুলা এলাকায় ইউসেপ ঘাসিটুলা স্কুলের অধিকারবঞ্চিত শ্রমজীবী বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীর মধ্যে খাদ্য সহায়তা বিতরণ করেছেন। স্কুলের সহকারী শিক্ষক শাহিদা জামানের তত্ত্বাবধানে বিকেল ৫টায় এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

shylet-(2)

খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল- পাঁচ কেজি চাল, ডাল দুই কেজি, তেল এক লিটার, পেঁয়াজ দুই কেজি, আলু দুই কেজি, সাবান একটি ও বাচ্চাদের খাবার।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এবং সাধারণ ছুটি ঘোষণার কয়েকদিন পর থেকে মূলত ত্রাণ সহায়তা শুরু করেন নায়েক সফি আহমেদ। প্রাতিষ্ঠানিক দায়িত্ব পালন শেষে নিজের মোটরসাইকেল নিয়ে বেরিয়ে পড়েন দুর্দশাগ্রস্ত মানুষের খোঁজে। অসহায় মানুষের ঘরে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন মো. সফি আহমেদ। সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর থেকে প্রতিদিন মোটরসাইকেলে করে ঘুরে ঘুরে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন তিনি।

shylet-(3)

এ পর্যন্ত প্রায় সাত সহস্রাধিক পরিবারকে সহায়তা করেছেন এই পুলিশ সদস্য। আগামীতেও অসহায় মানুষদের আরও সহায়তা করবেন বলে জানিয়েছেন শফি আহমেদ।

ছামির মাহমুদ/এএম/পিআর

.