অভ্যর্থনায় সামনে থাকা নিয়ে আ.লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১২

পাবনা -৩

সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পাবনার wardশ্বরদীতে দুটি এ-লীগ গ্রুপের মধ্যে একের পর এক সংঘর্ষে 12 জন আহত হয়েছে। দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেনকে স্বাগত জানাতে পাবনা -৪ আসনের আগামী উপ-নির্বাচন উপলক্ষে আওয়ামী লীগের একটি বিশেষ বর্ধিত সভায় এই ঘটনা ঘটে।

বর্ধিত সভা ও দলীয় কার্যালয়ের ভিতরে একাধিক নেতাকর্মীকে ছুরিকাঘাতের ঘটনাও ঘটেছে। উপ-নির্বাচন উপলক্ষে wardশ্বরদী উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু ও সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী মালিথ সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ রাত দশটা পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে। সংঘর্ষের কারণে Ishশ্বরদী উপজেলা যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে।

আহতরা হলেন Ishশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী মালিথা, আওয়ামী লীগ নেতা আবু কালাম, মুলাদুলি ইউনিয়ন কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর মালিথা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কবির মালিথা, পৌর যুবলীগের সভাপতি আলাউদ্দিন বিপ্লব, উপজেলা চেয়ারম্যানের ছেলে যুবলীগ কর্মী নাজিম উদ্দিন। রনি খান। পৌর যুবলীগের সাবেক সভাপতি সানোয়ার হোসেন লাবু, রিকশা চালক ওলিউর রহমান, যুবলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম, ৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আজিজ, ৮ নং আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলবার হোসেন ও যুবলীগ নেতা আমিরুল ইসলাম। Slightlyশ্বরদী পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ মিন্টুও কিছুটা আহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, দলের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, পাবনা -৫ সাংসদ গোলাম ফারুক প্রিন্স, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু এমপি এবং পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও পুলিশের উপস্থিতিতে এই সংঘর্ষ হয়েছে। ঘটনার আকস্মিকতার কারণে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন Ishশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে শান্ত করার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হন।

Wardশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্রে জানা গেছে, পাবনা -৪ আসনের আসন্ন উপনির্বাচনের আগে সোমবার Ishশ্বরদী উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের একটি বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়েছে। দলটির নেতারা প্রধান অতিথি হিসাবে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেনকে স্বাগত জানাতে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে অপেক্ষায় ছিলেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তাদের উপস্থিতি নিয়ে wardশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু ও সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী মালিথার মধ্যে কোন্দল শুরু হয়। এই ঘটনার শুরু। এর পরপরই পৌর আওয়ামী লীগের এই দুই নেতার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়।

এক পর্যায়ে দলীয় নেতাকর্মীরা একে অপরের দিকে চেয়ার ছুঁড়তে শুরু করে। দলের কেন্দ্রীয় নেতারাও এই সংঘর্ষ থামাতে ব্যর্থ হন। পরে অন্যান্য নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয় এবং যুবলীগ নেতা সানোয়ার হোসেন লাবু ও ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সালাম খানের ছেলে রনি খানকে আওয়ামী লীগ অফিসের ভিতরে ছুরিকাঘাত করা হয়। দুজনকে পাবনা এবং পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের Ishশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সংঘর্ষ চলাকালীন Ishশ্বরদী শহরের স্টেশন রোড ও মার্কেট এলাকায় দোকান ও ব্যবসা বন্ধ ছিল এবং উৎসুক মানুষ রাস্তায় জড়ো হয়েছিল। এ সময় নগরীর প্রধান সড়কে যখন বিশাল ট্র্যাফিক জ্যাম লেগেছিল, তখন সাধারণ মানুষ ভোগান্তিতে পড়েন। আতঙ্কিত লোকজনকে পাশাপাশি থেকে অন্যদিকে দৌড়াতে দেখা গেছে।

পাবনা -৩

Wardশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ মিন্টু বলেছেন, ঘটনাটি নৌকা নির্বাচনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। ২৮ শে সেপ্টেম্বর উপনির্বাচনে নৌকার বিজয়ের মাধ্যমে এই ষড়যন্ত্রের জবাব দেওয়া হবে।

অন্যদিকে, wardশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসহাক আলী মালিথা বলেছেন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মিন্টু ইচ্ছাকৃতভাবে এই নির্বাচনকে ব্যর্থ করে দিয়েছেন।

এই ঘটনার বিষয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেন, committeeশ্বরদী যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত করতে জেলা কমিটিকে ইতিমধ্যে বলা হয়েছে। এই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনায় জড়িত wardশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পাবনা জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আলী মুর্তজা সনি বিশ্বাস Ishশ্বরদী উপজেলা যুবলীগ ও পৌর যুবলীগের বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Wardশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসির উদ্দিন বলেন, আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে ঘটনাটি ঘটেছে। শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং বিশেষ সুরক্ষা ব্যবস্থা কঠোর করা হয়েছে। কেউ থানায় অভিযোগ করেননি তবে শহরের পরিস্থিতি এখন শান্ত (সন্ধ্যা 5 টা)।

এমএএস / পিআর

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ, বেদনা, সংকট, উদ্বেগ নিয়ে সময় কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজই এটি প্রেরণ করুন – [email protected]