আজহার আলিকে বদলে আবিদ আলি বানিয়ে দিল পাকিস্তান

jagonews24

সাউদাম্পটনে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্টে পাকিস্তান প্রচণ্ড চাপের মধ্যে রয়েছে। ইংল্যান্ডের পাহাড়ী 7373৩ রানের জবাবে দর্শকদের প্রথম ইনিংসটি ২3৩ এ কমে গিয়েছিল। ৩১০ রানে এগিয়ে থাকা ইংলিশরা পাকিস্তানকে ফলো-অনে পাঠাতে ভুল করেনি।

হাতে কেবল একটি বড় সীসা নয়। শেষ বিকেলে 6-6 ওভার বাকি থাকায় ইংলিশ টিম ম্যানেজমেন্ট সম্ভবত সময়োচিত সিদ্ধান্তকে ফলোঅন বিবেচনা করেছিল। পাকিস্তান এই ওভারে ব্যাট করবে, তারা যদি এক বা দুটি উইকেট নিতে পারে তবে তারা জিতবে।

প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের হয়ে একাই লড়াই করেছিলেন আজহার আলী। ক্যাপ্টেন নক! পাকিস্তান অধিনায়ক ১৪১ রানে অপরাজিত থাকেন। অংশীদারের অভাবে দল সংগ্রহ আরও বড় করতে পারেনি।

ফলোঅন পড়ার পরে আজহার দায়িত্ব নিজেই নিলেন। ব্যাট প্যাড পরা ছিল, শান মাসুদের সাথে ওপেনিংয়ে নামলেন তিনি। তবে আলোর অভাবে তৃতীয় দিনের শেষ বিকেলে পাকিস্তান ইনিংস শুরু করতে পারেনি।

আজহার-মাসউদ ড্রেসিংরুমে ফিরে গেল। চতুর্থ দিনের সকালে দেখা যায়, শান মাসউদের সাথে আজহার আর নেই, নিয়মিত ওপেনার আবিদ আলী নেমে এসেছেন। কি হলো? আজহার আউট ছিলেন না, আহত হননি। তবে আবিদ আলী কীভাবে এল?

আসলে, ক্রিকেটের নিয়মের অধীনে, মাঠে নামার সময় থেকেই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানদের ইনিংস গণনা করা হয়। অন্যান্য ব্যাটসম্যানদের ক্ষেত্রে গণনা মাঠে নামার মুহুর্ত থেকেই শুরু হয়।

যেহেতু আজহার উদ্বোধনের পরেও ইনিংসটি শুরু হয়নি, তার পরিবর্তে পরের দিন আরেকটি ওপেনিংয়ে প্রবেশ করা কোনও আইনী বাধা নেই। সেই বিষয়টি মাথায় রেখেই চতুর্থ দিনের সকালে আজহারকে প্রতিস্থাপনের জন্য নিয়মিত ওপেনার আবিদ আলীকে পাঠিয়েছিল পাকিস্তান।

শেন মাসউদের সাথে আবিদের উদ্বোধনী জুটি দলকে অনেক আত্মবিশ্বাস দিচ্ছে। ১৪ ওভার শেষে পাকিস্তান বিনা উইকেটে ৩৪ runs রান করে। মাসুদ ১০ ও আবিদ ১ 16 রানে অপরাজিত রয়েছেন। সফরকারী দলটি ২ 26 রানে পরাজিত।

এমএমআর / এমকেএইচ