উপকূলীয় বাঁধ রক্ষার দাবিতে পাউবো অফিস ঘেরাও

আটসতখির

সাতক্ষীরায় উপকূলীয় বাঁধকে রক্ষা করতে এবং লক্ষ লক্ষ মানুষকে জলাবদ্ধতা থেকে বাঁচাতে নাগরিক কমিটি জেলা জল উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) কার্যালয় ঘেরাও করে একটি সভা-সমাবেশ করেছে। বুধবার (২৮ আগস্ট) সকাল ১১ টার দিকে পাউবো অফিসের সামনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক মো। আনিসুর রহিমের সভাপতিত্বে এবং সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু আহমেদ, জেলা নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব আবুল কালাম আজাদ, কমিটির সদস্য এম কামরুজ্জামান, জেলা শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তপন কুমার শীল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। আলী নূর খান বাবলু।

বক্তারা বলেছিলেন, উপকূলীয় বেড়িবাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। জেলার লক্ষ লক্ষ মানুষ প্লাবিত হয়েছে। সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। জলাবদ্ধতার কারণে মানুষ ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের পরে সরকারের সকল উদ্যোগ সত্ত্বেও সাতক্ষীরা সহ উপকূলের মানুষ অবর্ণনীয় দুর্দশায় পড়েছে। ঝড়ের পরপরই, প্রতিমন্ত্রী ও সচিবসহ অনেক উচ্চপদস্থ সরকারী কর্মকর্তা এই অঞ্চলটি পরিদর্শন করেছিলেন। এলাকায় নদীর জলের প্রবাহ বন্ধ এবং দ্রুত বাঁধ নির্মাণের প্রতিশ্রুতিও দেওয়া হয়েছিল। স্থানীয় মানুষ স্বেচ্ছায় নিজের অর্থ দিয়ে বাঁশ, বস্তা এবং নখ কিনে এবং নদীর জলের প্রবাহ বন্ধ করতে জেলার তিনটি বড় পয়েন্ট বাদে সব জায়গায় রিং বাঁধ তৈরি করে।

আছাতখিরা -২

বক্তারা আরও জানান, বাঁধ ভেঙে যাওয়ার পরে ডিপিএমের মাধ্যমে জরুরি কাজ চালানোর জন্য নতুন ঠিকাদারও নিয়োগ করা হয়েছিল। তবে বেশিরভাগ জরুরি কাজ এবং পূর্ব-নির্ধারিত ঠিকাদাররা এলাকায় কোনও কাজ করেনি। ফলস্বরূপ, জলোচ্ছ্বাসের জলের চাপে, পূর্বে ভাঙা বাঁধগুলি নতুনভাবে ভেঙে পড়েছে, ফলে একটি দুরবস্থার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। আমরা এই সমস্ত থেকে মুক্তি পেতে চাই।

মানববন্ধনের পরে নাগরিক কমিটির নেতারা সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলের মাধ্যমে জল সম্পদ প্রতিমন্ত্রীকে একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।

আকরামুল ইসলাম / আরএআর / পিআর