এক সংবাদে সচ্ছল শিশু সাফিয়া-মারিয়ার পরিবার

sat.jpg

দুধের পরিবর্তে ময়দা খাওয়ানো শুরু হয়েছে সাফিয়া-মারিয়ার জীবনকে। রবিবার বিকেল সাড়ে ৪ টায় দুটি বাচ্চার বাবা আনিসুর রহমানের কাছে একটি সহজ বাইক হস্তান্তর করা হয় যাতে তাকে বাচ্চাদের নিয়ে বিরক্ত করতে না হয়। তাদের পরিবার এ থেকে উপার্জিত অর্থের উপর দিয়ে চলবে। শিশু সাফিয়া ও মারিয়ার বাড়ি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিঙ্গরি ইউনিয়নের ফয়জুল্লাহপুর গ্রামে।

মনির উদ্দিন আহমেদ, সহকারী অধ্যাপক, অর্থনীতি বিভাগ, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট এর উদ্যোগে এটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

সহকারী অধ্যাপক মনির উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবার এতে সহায়তা করেছিল। তিনি জানান, অভাবের কারণে তারা কয়েক মাস ধরে দুধের পরিবর্তে ময়দা পান করে আসছিল। এটা আমাদের ক্ষতি করেছে। দুই সন্তানের বাবা ভ্যান চালান। তাঁর কাছ থেকে জানতে পেরেছিলাম যে ফুট ভ্যানটি আর উপার্জন করছে না। লোকেরা উঠতে চায় না। এটি বিবেচনা করে, আমি পরিবারকে স্বাবলম্বী করার জন্য একটি সহজ বাইক দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এটি তাদের হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ থেকে আয় করে আনিসুর রহমান এখন থেকে পরিবার পরিচালনা করবেন এবং দুই সন্তানের ভাল যত্ন নেবেন।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল, পুলিশ সুপার মো: মোস্তাফিজুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাশীষ চৌধুরী সহ আরও অনেক ধরণের লোক তাদের পাশে এসে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেন।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাশীষ চৌধুরী ২ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রীকে দুটি সন্তানের জন্য বরাদ্দকৃত একটি দুটি কক্ষের ঘর দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

তিনি বলেন, চলতি মৌসুমে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে দুটি কক্ষ ঘর বরাদ্দের প্রথম পদক্ষেপটি হবে দুটি বাচ্চাদের জন্য একটি বাড়ি বরাদ্দ করা। তারা খুব অসহায় মানুষ। আমি শিখেছি যে তাদের নিজস্ব জমি খুব অল্প পরিমাণে আছে। তবে থাকার মতো কোনও বাড়ি নেই।

সহজ বাইকটি পাওয়ার পরে সাফিয়া-মারিয়ার বাবা আনিসুর রহমান বলেছিলেন, “আমি খুব খুশি। আমি যে সব স্যারের প্রতি আমার বাচ্চাদের জন্য আমাকে সাহায্য করেছেন তাদের প্রতি আমি সর্বদা willণী থাকব।”

sat.jpg

দু’জনের মা স্বপ্না বেগম জানান, শিশুর দুধের সমস্যা সমাধান হয়ে গেছে। এখন আমি একটি সহজ বাইক পেয়েছি। আমরা আর অভাব হবে না। এভাবেই আমরা চালিয়ে যেতে পারি। যারা বিভিন্ন উপায়ে সহযোগিতা করেছেন তাদের সকলের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ও বায়োটেকনোলজির সহকারী অধ্যাপক, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মোঃ হযরত আলী।

তিনি বলেছিলেন যে জাগো নিউজের খবর দেখার পরে মনিরুদ্দিন স্যার মূলত পরিবারকে স্বনির্ভর করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। দুই সন্তানের জনক আনিসুর রহমান এ উদ্দেশ্যে একটি সহজ বাইক কিনেছিলেন। আমরা তাদের সার্বক্ষণিক নজর রাখব।

আকরামুল ইসলাম / এমএএস / এমএস

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। সময় আনন্দ এবং দুঃখে, সঙ্কটে, উদ্বেগে কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজ পাঠান – [email protected]