‘কর্মহীন সংস্কৃতিসেবীদের সহায়তা প্রদান অব্যাহত থাকবে’

jagonews24

প্রতিমন্ত্রী সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, বর্তমান সরকার শিল্প-সংস্কৃতিবান্ধব সরকার। প্রধানমন্ত্রী নিজে একজন বিশিষ্ট সংস্কৃতি অনুরাগী এবং সাংস্কৃতিক কর্মীদের প্রতি বিশেষভাবে আন্তরিক। তিনি যে কোনও দুঃখ ও সমস্যায় শিল্পী ও সংস্কৃতি কর্মীদের সর্বদা সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন। করোনার সময়কালে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে সারা দেশে প্রায় 9,800 বেকার সাংস্কৃতিক কর্মীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছে। সংস্কৃতি মন্ত্রক এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি প্রায় 6,০০০ বেকার সাংস্কৃতিক কর্মীদের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তার জন্য আবেদন পেয়েছে। এই সংস্কৃতিবিদদের তহবিল প্রাপ্তির ক্ষেত্রেও সহায়তা সরবরাহ করা হবে। সংক্ষেপে, করোনার বেকার সংস্কৃতিবিদদের সহায়তা প্রদান চালিয়ে যাবে।

বুধবার (৫ আগস্ট) বিকেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ শেখ কামালের st১ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বাংলাদেশের আধুনিক সংস্কৃতি ও ক্রীড়া আন্দোলনের প্রবক্তা জ্যেষ্ঠ পুত্র মো। বেকার বাদ্যযন্ত্র সংগীত শিল্পীদের মাঝে অর্থ বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বেকার সাংস্কৃতিক কর্মীদের তালিকা যথাসম্ভব স্বচ্ছতার সাথে প্রস্তুত করা হয়েছে এবং অনুদানের অর্থ তাদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। এরই মধ্যে অজান্তে কিছু ভুল হয়ে থাকতে পারে। ভবিষ্যতে আরও সতর্কতা অবলম্বন করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী করোনার মহামারীতে মারা যাওয়া সমস্ত শিল্পী ও সাংস্কৃতিক কর্মীদের আত্মার কাছে শান্তি কামনা করেছিলেন এবং আশা প্রকাশ করেছিলেন যে শীঘ্রই এই দুর্যোগের অবসান হবে।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো। বদরুল আরেফিন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সংগীত শিল্প ফাউন্ডেশনের সভাপতি গাজী আবদুল হাকিম। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি মন্ত্রকের যুগ্ম-সচিব অসীম কুমার দে।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সম্পাদক মো। নওসাদ হোসেন পরিচালিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

এইচএস / এফআর / এমকেএইচ