কারাগারে মিন্নির সঙ্গী নেই কেউ

বোরগুনা

বহুল আলোচিত বরগুনা রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ছয় আসামিকে বরগুনা জেলা কারাগারের কনডম সেলে রাখা হয়েছে। এই মুহূর্তে বরগুনা জেলা কারাগারের কনডম সেলে এই ছয় জন বন্দি ছাড়া আর কোনও বন্দি নেই বলে জানিয়েছেন বরগুনা জেলা কারাগারের সুপারিনটেনডেন্ট (জেল সুপার) মোঃ আনোয়ার হোসেন।

তিনি জানান, কনডম সেলের এই মুহূর্তে বরগুনা কারাগারে মিনি একমাত্র মহিলা বন্দী। মগ্নি ছাড়াও বরগুনা জেলের কনডম সেলে অন্য কোনও মহিলা বন্দী নেই।

রিফাত হত্যা মামলার অপর পাঁচ জন পুরুষ অভিযুক্তকেও কনডম সেলে রাখা হয়েছে। এই পাঁচটি পুরুষ বন্দী ছাড়াও বরগুনা কারাগারের কনডম সেলে অন্য কোনও পুরুষ বন্দি নেই বলে কারাগারের সুপার ড।

মোঃ আনোয়ার হোসেন জানান, মিনিকে মহিলা ওয়ার্ডের কনডম সেলে রাখা হয়েছে। এবং পুরুষ ওয়ার্ডের কনডম সেলে পুরুষ বন্দি রয়েছেন।

তিনি বলেছিলেন যে বিশেষ কোষে দোষীদের রাখা হয় তাকে কনডম সেল বলা হয়। কনডম সেল বন্দিরা কখনই কোষ থেকে বেরিয়ে আসতে পারে না। এই বন্দিরা মাসে একবার তার আত্মীয়দের সাথে দেখা করতে পারেন। এছাড়াও সপ্তাহে একবার তারা তাদের আত্মীয়দের সাথে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ফোনে কথা বলতে পারে।

রিফাত

তিনি বলেছিলেন, রিফাত হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ছয় আসামির সবাই কনডম সেলে মানসিকভাবে অশান্ত হয়ে পড়েছিল। প্রত্যেক আসামিকে কারাগারে দুটি সেট কাপড়ও দেওয়া হয়েছিল। তারা এই পোষাক পরবে।

মিনিকে সহ ছয় দোষীকে দেশের অন্য কারাগারে স্থানান্তরিত করার কোনও পরিকল্পনা রয়েছে কিনা জানতে চাইলে কারাগারের সুপারিনটেনডেন্ট আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব এবং তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব। বর্তমানে আসামিদের উচ্চ আদালতে আপিল করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

সাইফুল ইসলাম মিরাজ / এফএ / পিআর

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ-বেদনা, সংকট, উদ্বেগের মধ্যে সময় কেটে যাচ্ছে। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজই এটি প্রেরণ করুন – [email protected]