ছেলেকে বাঁচাতে যাওয়ায় বাবাকে পিটিয়ে মারলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান

সাতক্ষীরা

ছেলেকে বাঁচানোর চেষ্টা করতে গিয়ে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও তার সমর্থকদের মধ্যে মারামারিতে লুৎফর নিকারি নামে এক মাছ ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। সোমবার রাত ১১ টার দিকে সাতক্ষীরার তালা সদরের নলবুনিয়া বিলে এই ঘটনা ঘটে।

এদিকে, মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে গ্রামবাসীরা হত্যার বিচারের দাবিতে একটি মিছিলে তালা থানা ঘেরাও করে। এ সময় কয়েক হাজার গ্রামবাসী ‘আমি খুনিদের ফাঁসি চাই’ স্লোগান দিতে শুরু করে।

তালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী রাসেল জানান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সরদার মশিয়ার রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। পরে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিহত লুৎফর নিকারি (65৫), তালা সদরের জয়লা নিকারিপাড়ার মৃত আইজুল নিকরীর ছেলে। গ্রেপ্তার মশিয়ার রহমান সরদার তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও তালা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান।

নিহতের ভাগ্নে রুহুল আমিন নিকারি জানান, লুৎফর নিকড়ির ছেলে সেলিম নিকারি নলবুনিয়া বিলের সরকারী খালে মাছ ধরছিল। সেই খালের পাশাপাশি ভাইস চেয়ারম্যান সরদার মশিয়ার রহমানের একটি ফিশ পেন রয়েছে। মশিয়ার সহকর্মী রনি খাল থেকে সেলিমকে ধরে ফেলেন। সরদার মশিয়ার ঘটনাস্থলে পৌঁছলে বারুইহাটি গ্রামের রনি, একই গ্রামের মোসলেম শেখের ছেলে তুহিন শেখ এবং আরও তিনজন তাকে মারধর করেন।

ছেলের মারধরের ঘটনা শুনে বাবা লুৎফর নিকারি ঘটনাস্থলে ছুটে যান। সেখানে যাওয়ার সাথে সাথে সরদার মশিয়ার, তুহিন ও রনিও তাকে মারধর করে। পরে গ্রামবাসীরা গিয়ে লুৎফর রহমানকে মৃত অবস্থায় দেখতে পায়। সেলিমকেও তার পাশে অজ্ঞান অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল।

এলাকার হযরত নিকারি জানান, সেলিম নিকারি বর্তমানে তালা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তার কানের কান ফেটে গেছে। আমরা এই হত্যার বিচার চাই। আমি এই সন্ত্রাসী পরিবারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

স্থানীয়রা রাতে পুলিশ জরুরী পরিষেবাকে 999 বলে ফোন করে। পরে রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে সরদার মশিয়ারকে গ্রেপ্তার করে।

আকরামুল ইসলাম / এফএ / জেআইএম