ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে বিএনপি দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, ফিরে গেল অসহায়রা

কুড়িগ্রাম বিএনপির

বিএনপির ত্রাণ বিতরণকে কেন্দ্র করে কুড়িগ্রামে জেলা বিএনপির দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাহেল হাসনাইন কায়কবাদ সহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার বিকেলে নগরীর পৌর এলাকার ভেলাকাপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, নেতাকর্মীরা দ্রুত কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়েছেন।

কুড়িগ্রাম সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজার রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ।

এক পর্যায়ে সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা গ্রুপ ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সেহল হাসনাইন কায়কবাদ গ্রুপের মধ্যে ঝগড়া হয়।

এক পর্যায়ে তারা লড়াই শুরু করে এবং সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। উভয় পক্ষের আহতরা কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল সহ বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এখনও অবধি সঠিক সমাধান প্রেরণ করতে কেউই সক্ষম হয় নি, এটি আশ্চর্যের নয়। পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

বিএনপির দুটি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের জেরে শহরে উত্তেজনা চলছে। আইন শৃঙ্খলা যাতে না খারাপ হয় তা নিশ্চিত করতে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ টহল জোরদার করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক বলেন, অপ্রীতিকর ঘটনাটি আসনটির কেন্দ্রে ঘটেছিল। ফলস্বরূপ, ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম ব্যাহত হয়েছিল। এ সময়, ত্রাণের জন্য আসা ছয় শতাধিক লোক ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। তবে কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিবের উপস্থিতিতে যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে দলের ভাবমূর্তি কলুষিত করেছেন তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে বলা হবে কেন্দ্রকে।

নাজমুল / এমএএস / পিআর