নানান ঝঞ্ঝাটের মাঝেও আনন্দের ঠিকানা ‘প্রবীণ কল্যাণ ক্লাব’

পাবনা-প্রোবিন-ক্লাব

তারা এখন জীবনের শেষ পর্যায়ে। কারওর বয়স 60০ বছরের বেশি, কারও 60০ বছরের বেশি। তারা এই বয়সে একাকী। তাদের কথা ভেবে পাবনা সদর উপজেলার শ্রীপুরে ‘ভেটেরান ওয়েলফেয়ার ক্লাব’ গঠন করা হয়েছে।

প্রতি বিকেলে প্রবীণরা এখানে সমবেত হন। তারা একটু মজা করতে ছুটে গেলেন সিনিয়র ক্লাবে। ২৮ অক্টোবর ওয়ার্ল্ড ভেটেরান্স দিবস উপলক্ষে আড্ডাটি আরও প্রাণবন্ত এবং বিভিন্ন ইভেন্টে ভিড় করবে। ক্লাবটি সিনিয়রদের মনে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে।

গিভেন্সি গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং প্রবীণ পুনর্বাসন কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা খতিব আবদুল জাহিদ মুকুল পাবনা শহর থেকে ৫- km কিলোমিটার দূরে ‘ভেটেরান্স ওয়েলফেয়ার ক্লাব’ অবস্থিত সেই গ্রামের বাসিন্দা। প্রাচীনদের ভেবে কিছু সময় ভাল রাখার ধারণা নিয়ে তিনি এই ক্লাবটি এখানে তৈরি করেছেন।

প্রতি বিকেলে প্রবীণরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে এখানে আসেন। তিন ঘন্টা থাকুন। তারা তাদের বর্ণময় সময়ের গল্প বলতে একে অপরের সাথে মিশে যায়। তাদের অনেকের কাছেই এই ক্লাবটি পরিবারের বাইরে আলাদা জায়গার মতো।

ক্লাবটিতে আগত প্রবীণদের শুকনো খাবার এবং চা ক্লাব সরবরাহ করে। উদ্যোক্তারা যারা পান করেন এবং খাবেন তাদেরও ব্যবস্থা করেছেন। প্রার্থনা ব্যবস্থা এবং বিনোদন উপকরণ আছে।

প্রতি বৃহস্পতিবার বিকেলে, এই অঞ্চলের প্রবীণদের জন্য ডায়াবেটিস রোগ নির্ণয়, চাপ পরিমাপ এবং প্রাথমিক চিকিত্সা করা হয়।

প্রবীণ কল্যাণ ক্লাব ইসলাম প্রাং, ইব্রাহিম হোসেন, রেজাউল হক কচি, এ। গণি মাস্টার সহ কয়েকজন প্রবীণের সাথে কথা বলে তারা জানান, তাদের বসার কোনও জায়গা নেই। বিভিন্ন চায়ের দোকানে বসার পরিবেশ নেই। সুতরাং তাদের জন্য এই অভিজ্ঞ ক্লাবটি একটি খুশির ঠিকানা হয়ে উঠেছে। তারা এখানে এসে বিভিন্ন ধরণের চিঠি এবং ম্যাগাজিন পড়ে।

পাবনা-প্রোবিন-ক্লাব -২

তারা বলেছে যে তারা হাজারো পারিবারিক ঝামেলাতে ক্লান্ত ছিল। তাই তারা যথাসম্ভব এখানে থাকতে পছন্দ করে।

গ্রামের চিকিৎসক আবদুর রাজ্জাক বিশ্বাস জানান, তিনিও একজন প্রবীণ। তিনি অন্যান্য গুরুজনদেরও স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দেন।

সিনিয়র ক্লাবের চিকিত্সক কর্মী সুমনা আক্তার জানিয়েছেন, তিনি ডায়াবেটিস ও রক্তচাপের পরিমাপ সহ প্রতি বৃহস্পতিবার প্রবীণদের প্রাথমিক চিকিত্সা সরবরাহ করেন। যে কেউ একবার আসে তাকে পরের মাসে একই তারিখে আবার চেকআপের জন্য আসতে বলা হয়। প্রতি মাসে চেক আপ করা রুটিন কাজের মতো। প্রবীণরা এই পরিষেবাগুলি বিনামূল্যে পান।

পাবনা-প্রোবিন-ক্লাব -২

ক্লাবটির স্থানীয় সমন্বয়কারী আবুল বাশার বাবুল জানান, দীর্ঘদিন ধরে ক্লাবটি গঠন হয়নি। যাইহোক, তাদের অ্যাকশন করার পরিকল্পনা রয়েছে, এখানে সমস্ত কিছু व्यवस्थित করা হবে, যাতে বয়স্করা দরকারী বিনোদন পান। তারপরেও, দর্শকদের জন্য প্রাতঃরাশ, চা এবং সতেজতা সরবরাহ করা হয়। বেশ কয়েকটি পত্রিকা রাখা হয়েছিল। নামাজের ঘরও স্থাপন করা হয়েছে। যদি বৃষ্টি হয় তবে বাড়ির ভিতরে আড্ডার জন্য বিশাল হল রুম রয়েছে room আবহাওয়া ভাল থাকলে বসার ব্যবস্থা এবং খেলার সুবিধা রয়েছে।

আবুল বাশার বাবুল আরও জানান, এই ক্লাবটির প্রতিষ্ঠাতা খতিব জাহিদ মুকুল একটি বৃদ্ধাশ্রম পরিচালনা করেছেন। তিনি দেশের প্রবীণদের কথা ভাবেন। স্থানীয় প্রবীণদের স্বাস্থ্যসেবা ও বিনোদন সরবরাহে এই ক্লাবটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। তিনি বলেন, এখানে একটি হাসপাতাল স্থাপন সহ আগামী দিনের মধ্যে এর কার্যক্রমের ক্ষেত্র আরও বাড়ানো হবে।

এফএ / জনসংযোগ

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ, বেদনা, সংকট, উদ্বেগ নিয়ে সময় কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজ পাঠান – [email protected]