নাভারন যাত্রী ছাউনিতে রয়েই গেছে আম্পানের ক্ষত

বেনাপোল -১

ছয় মাস আগে যশোরের শার্শা উপজেলার নাভরান রেলওয়ে স্টেশনে একটি যাত্রীবাহী শিবিরটি ঘূর্ণিঝড় আমপনের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল। ক্ষতিগ্রস্থ যাত্রীর ছাউনিটি এখনও মেরামত করা যায়নি, যদিও করোনার পরে যাত্রীবাহী ট্রেনটি আংশিকভাবে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে এসেছিল। ফলস্বরূপ, এই স্টেশনটির ব্যবহারকারীদের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।

জানা গেছে, প্রায় ছয় মাস কেটে গেলেও ক্ষতিগ্রস্থ যাত্রী শিবির নজরদারি চলছে। তবে সংস্কারের প্রতি উদাসীনতা রয়েছে।

স্থানীয়দের মতে, ২০ শে মে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের ভয়াবহ প্রভাবের কারণে যাত্রী শিবিরের সামনের ও পেছনের টিনটি উল্টে গেছে। করোনায় দীর্ঘ বিরতির পরে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও যাত্রী শিবিরটি সংস্কার করা হচ্ছে না। যাত্রীরা বৃষ্টি বা রোদে ভোগেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নাভরান রেলওয়ে স্টেশনের একজন বুকিংম্যান জানান, করোনার আগে তিনি স্টেশন থেকে টিকিট বিক্রি করে মাসে প্রায় দুই লাখ টাকা উপার্জন করতেন। তবে আম্পানের ক্ষতিগ্রস্থ যাত্রী শিবিরটি authoritiesর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলেও কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

রেলওয়ের আইডাব্লু অফিসার চাঁদ আহমেদ জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের নাভরান রেলস্টেশনে যাত্রী তাঁবুটির সামনে এবং টিনটি উল্টে যায়। তারা উচ্চতর কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার পরে রেলপথের পশ্চিমাঞ্চল পরিদর্শন করেছেন। তারা আশ্বাস দিয়েছে যে কিছুটা দেরি হলেও করোনায় পরিস্থিতি শীঘ্রই সমাধান করা হবে। আশা করি শিগগিরই সংস্কার কাজ শুরু হবে।

জামাল হোসেন / এএইচ / এমএস

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। সময় আনন্দ এবং দুঃখে, সঙ্কটে, উদ্বেগে কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজ পাঠান – [email protected]