মসজিদে বিস্ফোরণে নিহত মুয়াজ্জিনের পরিবারকে অর্থমন্ত্রীর সহায়তা

কুমিল্লা-অর্থ-মন্ত্রী-সহায়তা

অর্থমন্ত্রী এএইচএম মোস্তফা কামাল নারায়ণগঞ্জের একটি মসজিদে বিস্ফোরণে নিহত মুয়াজ্জিন দেলোয়ার হোসেন এবং তার বড় ছেলে জোনায়েদের অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাদের পরিবারকে নগদ এক লক্ষ টাকা এবং অর্থমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে বাছুরসহ তিনটি গরু দেওয়া হয়েছে। মুয়াজ্জিন দেলোয়ার হোসেনের বাড়ি কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায়।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার বদরপুর গ্রামে অর্থমন্ত্রীর নিজ বাড়িতে দেলোয়ার হোসেনের পরিবারকে এই সহায়তা দেওয়া হয়। অর্থমন্ত্রীর সহকারী বেসরকারী সচিব কে এম সিংহ রতন, কুমিল্লা জেলা পরিষদ সদস্য আবুবকর সিদ্দিক আবু, নাঙ্গলকোট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল হোসেন, পৌর মেয়র আবদুল মালেক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ ভূঁইয়া, ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান ভূঁইয়া বাছির ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত। রাষ্ট্রপতি কে এম জিল্লুর রহমান।

মুয়াজ্জিন দেলোয়ার হোসেনের শ্বশুর হাবিবুর রহমান বলেন, আমরা অর্থমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ। চরম বিপদে তিনি দেলোয়ারের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

দেলোয়ার হোসেনের ভাই জাফর আহমেদ জানান, দেলোয়ার হোসেন ও তার ছেলে জোনায়েদের মৃত্যুর পরে পরিবারটি অসহায় অবস্থায় পড়েছিল। বর্তমানে দেলোয়ার হোসেনের এক স্ত্রী, এক ছেলে ও তিন মেয়ে রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে অর্থমন্ত্রী এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সহায়তা করায় পরিবার উপকৃত হয়েছে।

৪ সেপ্টেম্বর রাতে নারায়ণগঞ্জের বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণে এক শিশুসহ কমপক্ষে ৩১ জন নিহত হয়েছেন। মসজিদের মুয়েজিন হাফেজ দেলোয়ার হোসেন (৪৮) এবং তার বড় ছেলে জোনায়েদ (১৮) নিহত হয়েছেন। পরের রাতে তাদের কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার বদরপুর গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

মোঃ কামাল উদ্দিন / এএম / পিআর

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ, বেদনা, সংকট, উদ্বেগ নিয়ে সময় কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজই এটি প্রেরণ করুন – [email protected]