মায়ের লাশ নিজ হাতে ৫ টুকরো করে থানায় ছেলের মামলা

নোয়াখালী

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে মহিলাদের দেহের পাঁচ টুকরো উদ্ধার রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, নিহতের ছেলে হুমায়ুন তার সাত সহযোগী সহ মাকে হত্যা করেছে এবং লাশ ধান ক্ষেতে ফেলেছে, পুলিশ জানিয়েছে।

এই মর্মান্তিক ঘটনায় প্রয়াত নুরজাহানের ছেলে হুমায়ুন কবির বাদী হয়ে মামলা করেছেন। সেই মামলার ভিত্তিতে নোয়াখালী জেলা পুলিশ তদন্তে জানা গেছে যে শিশুটি খুনের সাথে সরাসরি জড়িত ছিল।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, “মামলার সাত আসামির মধ্যে আমরা পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছি।” তাদের মধ্যে দুজন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। মামলার মূল আসামি নূরজাহানের ছেলে ও বাদী হুমায়ুন কবিরকে আজ স্বীকারোক্তির জন্য আদালতে তোলা হবে।

তিনি আরও বলেছিলেন যে হুমায়ূনের ভাই বেলাল মৃত্যুর সময় চার লক্ষ টাকা debtণ রেখেছিলেন। তিনি Huণ শোধ করার জন্য হুমায়ুনকে চাপ দিলে তিনি মাকে জানান। কিন্তু তার মা loanণ দিতে অস্বীকৃতি জানালে তিনি চাপ সহ্য করতে না পেরে তাকে হত্যা করেন।

উল্লেখ্য যে, ৮ ই অক্টোবর পুলিশ সুবর্ণাচরের ধানক্ষেত থেকে নুরজাহান বেগম (৪২) নামে এক মহিলার লাশের পাঁচ টুকরো উদ্ধার করেছে।

নিহতের ছেলে হুমায়ুন কবির (২,) জানান, তার মা ভোর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন। পরে বিকেলে স্থানীয় এক মহিলা ধানের জমিতে শামুক খুঁজতে গিয়ে মৃতদেহের টুকরো দেখতে পান। পরে বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরে তিনি শামুকের ব্যাগটি লাশের পাশে দেখতে পেয়ে মায়ের দেহ শনাক্ত করেন।

মিজানুর রহমান / এফএ / পিআর

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ, বেদনা, সংকট, উদ্বেগ নিয়ে সময় কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজই এটি প্রেরণ করুন – [email protected]