মৌসুমের প্রথম পরাজয়ে টেবিলের ৯ নম্বরে মেসির বার্সেলোনা

মরসুমের প্রথম পরাজয়ে মেসির বার্সেলোনা টেবিলের 9 নম্বরে রয়েছে

নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যানের অধীনে প্রথম-হারের স্বাদ পেয়েছে বার্সেলোনা। এটি আবার লিগে বার্সার প্রথম হার। প্রতিপক্ষের গেটাফেতে মেসি ১-০ গোলে পরাজিত হয়ে মাঠ ছাড়েন। পেনাল্টি স্পট থেকে গেটেফের স্ট্রাইকার জেমি মাতার একমাত্র গোলটি ছিল কমনওয়েলথকে পরাস্ত করা।

চলতি মৌসুমের শুরুতে লা লিগায় খেলা ৩ টি ম্যাচের কোনওটিতেই কাতালান দল হারাতে পারেনি। তবে আন্তর্জাতিক বিরতির আগের আগের ম্যাচে বার্সা সেভিলার বিপক্ষে ১-০ গোলে ড্র করে লিগের প্রথমবারের মতো পয়েন্ট হারিয়েছিল।

এই ম্যাচে বার্সার লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠার সুযোগ ছিল। কারণ টেবিলের শীর্ষে থাকা রিয়াল মাদ্রিদ একই দিনে নবাগত ক্যাডিজের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে পরাজিত হয়ে মাঠ ছাড়ল। আপাতত, বার্সেলোনা একটি টেবিল টোপার হওয়ার সুযোগটি হারিয়েছে। গত বছরের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল বর্তমানে 5 ম্যাচে 3 জয়, একটি ড্র এবং একটি পরাজয় 10 পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে। লিওনেল মেসির দল বার্সেলোনা ৪ ম্যাচে ২ টি জয়, একটি ড্র এবং একটি পরাজয়ের সাথে points পয়েন্ট নিয়ে 9 নম্বরে রয়েছে। বার্সা এবং রিয়ালের কাছে পরাজয়ের স্বাদ পেলেন গেটেফে এবং সিডিজে যথাক্রমে টেবিলের দ্বিতীয় এবং তিন নম্বরে।

বার্সার বস রোনাল্ড কোম্যান গেটেফের বিপক্ষে স্কোয়াডে বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছিলেন। তিনি তার পছন্দসই গঠনটি ৪-২-৩-১ এ রেখে মেসিকে বার্সেলোনার traditionalতিহ্যবাহী 4-৩-৩ তে ফিল্ড করেছিলেন। এছাড়া লিগের আগের তিন ম্যাচে দুর্দান্ত খেলে থাকা ফিলিপ কৌতিনহো ও আনসু ফাতিকে প্রথম একাদশে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। ওসমান ডেম্বেলে এবং নতুন স্বাক্ষরকারী পেদ্রি তাদের স্থলাভিষিক্ত হন। বামপন্থী জর্ডি আলবা, যিনি চোটের কারণে অবসর পেয়েছেন, তার পরিবর্তে আরও একটি নতুন সই সের্জিও ডেস্টকে স্থান দেওয়া হয়েছে।

ম্যাডামের এই ম্যাচের 20 মিনিটে বার্সেলোনা এগিয়ে যেতে পারত। মেসির শর্ট গেটেফের গোলরক্ষককে ফাঁস করে দিলেও গোলপোস্ট বাধা হয়ে দাঁড়ায়। তবে আন্তোনিও গ্রিজম্যান বার্সার হয়ে ম্যাচের সেরা সুযোগটি মিস করেছেন। ফ্রেঞ্চ ফুটবলার 30 মিনিটে ডাচ তারকা ফ্র্যাঙ্কি ডি ইয়ংয়ের বাড়ানো বলটি একাই বক্সে গোলরক্ষক ডেভিড সোরিয়াকে পেতে ব্যবহার করতে পারেননি। বারের উপরে মারেন। লংলেটলেট 34 ম মিনিটে মেসির ফ্রি কিকটি স্পর্শ করতে পারেনি। হতাশায় মাঠ ছাড়েন বার্সেলোনার খেলোয়াড়রা। প্রথমার্ধে বেশ কয়েকটি আক্রমণও করেছিলেন গেটেফ। তবে বার্সার ডিফেন্ডার-গোলরক্ষক সহজেই এটি পরিচালনা করেছিলেন।

দ্বিতীয়ার্ধের নবম মিনিটে ডি ইয়ং গেটেফের ডিফেন্ডার জেনকে নিজের ডি-বক্সে ফাউল করেন। রেফারি পেনাল্টির জন্য হুইসেল উড়িয়ে দিলেন। জেমি মাতার নেওয়া স্পট কিক থেকে স্বাগতিকরা নেতৃত্ব দিয়েছিল। বিকল্প আনসু ফাতির শটটি 7 তম মিনিটে গেটেফার গোলরক্ষক অবরুদ্ধ করে দিয়েছিলেন।

মরসুমের প্রথম পরাজয়ে মেসির বার্সেলোনা টেবিলের 9 নম্বরে রয়েছে

স্বাগতিকরা 63৩ মিনিটে ব্যবধান বাড়িয়ে দিতে পারত। তবে বার্সার গোলরক্ষক আঙুলের পরামর্শ দিয়ে বারের উপর দিয়ে গেটাফের স্ট্রাইকার জুয়ান হার্নান্দেজকে নেওয়া শর্টটি পাঠিয়ে দলকে বাঁচালেন। হার্নান্দেজ 6 তম মিনিটে নেটকে একা ব্যবহার করতে পারেননি। এবার সে বারের উপর দিয়ে উড়ে গেল। তবে অতিরিক্ত মিনিটে মেসির শর্ট গোল পোস্টের কাছাকাছি চলে যায়। শেষ হুইসেলের এক মিনিট আগে সেরগিনো ডেসেটের বলটি গেটেফের ডিফেন্ডার ক্লিয়ার করেছিলেন। ফিরে আসে বারে। স্বাগতিকরা কিছুক্ষণ বেঁচে গেল।

যদিও বার্সেলোনা ম্যাচে of৩% বলটি ধরেছিল, তবে আন্তর্জাতিক খেলায় অনেক খেলোয়াড়ের ক্লান্তি লক্ষণীয় ছিল। গেটেফা বার্সার চেয়ে বেশি শর্টস নিয়েছে, বলটি কেবলমাত্র 28 শতাংশ দখলে রয়েছে। পুরো ম্যাচ জুড়ে বার্সেলোনা গোলের জন্য 6 টি এবং গেটেফের বিপক্ষে 9 টি শর্টস নিয়েছিল। এক রাউন্ড অতিথিদের সংক্ষিপ্ত, 4 জন হোস্ট।

বার্সেলোনার তিনজন খেলোয়াড় হলুদ কার্ড পেয়েছেন। তারা হলেন জেরার্ড পাইক, সার্জিও রবার্তো এবং সার্জিওনো ডেস্ট। বিপরীতে, রেফারির হলুদ কার্ডে চার জন গেটেফ খেলোয়াড়ের নাম দেওয়া হয়েছে।

এফআর

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। সময় আনন্দ এবং দুঃখে, সঙ্কটে, উদ্বেগে কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজ পাঠান – [email protected]