যানজটের কারণ জানতে মহাসড়কে ডিসি

jagonews24

Mirাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর উপজেলার গড়াই শিল্পাঞ্চলের ৪০০ মিটার এলাকায় প্রতিদিন ট্র্যাফিক জ্যাম তৈরি হচ্ছে। প্রায় তিন মাস ধরে এই প্রতিদিনের ট্র্যাফিক জ্যাম চলছে। ফলস্বরূপ, এই হাইওয়েতে ভ্রমণরত হাজার হাজার যাত্রীকে প্রতিদিন প্রচুর দুর্ভোগ পোহাতে হয়। কখনও কখনও এই ট্র্যাফিক জ্যাম পুরো দিন ধরে থাকে।

‘জয়দেবপুর-এলেঙ্গা পর্যন্ত 6-লেনের কাজ শেষ করার বিষয়ে উদ্বেগ’ শিরোনামে ১১ সেপ্টেম্বর জাগো নিউজে এই খবর প্রকাশিত হয়েছিল। খবরটি স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের নজরে আসে। রবিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) জেলা আইনশৃঙ্খলা সভায় অনেকে ট্রাফিক জ্যাম নিয়ে আলোচনা করেন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো। আতাউল গণি জানিয়েছেন।

এদিকে, হাইওয়েতে place স্থানে কেন প্রতিদিন ট্রাফিক জ্যাম হচ্ছে বলে জানতে সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক আতাউল গণি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এ সময় চার লেন প্রকল্পের পরিচালক মো। ইসহাক হোসেন, অতিরিক্ত পরিচালক জিকরুল হাসান, টাঙ্গাইল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফিকুল ইসলাম, মির্জাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল মালেক, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) যুবায়ের হোসেন, পুলিশ ওসি মো। সায়েদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শনকালে জেলা প্রশাসক দখলকৃত জমির মালিকদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাদের ক্ষতিপূরণের অর্থ পাওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়ে যানজট নিরসনে সকলকে আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানান।

চার লেন প্রকল্পের পরিচালক মো। ট্রাফিক জ্যামের কারণ ব্যাখ্যা করে ইসহাক হোসেন জেলা প্রশাসককে বলেছিলেন যে ঘটনাস্থলে একটি ৩ 360০ মিটার দীর্ঘ এবং ১৮.২ মিটার প্রশস্ত ফ্লাইওভার নির্মিত হবে। তবে মহাসড়কের উভয় পাশে দখলকৃত জমির মূল্য এখনও পরিশোধ করা হয়নি। এ কারণেই মহাসড়কের দুপাশে ব্যক্তিগত মালিকানাধীন জমির মালিকরা তাদের স্থাপনাগুলি সরিয়ে নিতে বিলম্ব করছেন। ফ্লাইওভার নির্মাণের আগে সার্ভিস লেন তৈরি করা দরকার। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের মহাসড়ক থেকে তাদের বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলি অপসারণে ব্যর্থতার কারণে নির্মাণকাজও বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। ফলস্বরূপ, প্রতিদিন ওই এলাকায় ট্র্যাফিক জ্যাম তৈরি হচ্ছে। যানজটের কারণে নির্মান কাজে জড়িত শ্রমিকরা ঠিক মতো কাজ করতে পারছেন না। প্রকল্প পরিচালক আরও বলেছিলেন যে এই উদ্দেশ্যে কিছু শ্রমিককে জায়গা থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

jagonews24

তিনি আরও যোগ করেন যে, মহাসড়কের উভয় পাশের স্থাপনাগুলি সময়মতো সরানো হলে দ্রুত উভয় পক্ষের পরিষেবা লেন তৈরি করা সম্ভব হবে। এটি ফ্লাইওভারের কাজকে ত্বরান্বিত করার পাশাপাশি প্রতিদিনের যানজট দূর করবে।

এস এম এরশাদ / আরএআর / এমকেএইচ

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ, বেদনা, সংকট, উদ্বেগ নিয়ে সময় কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজই এটি প্রেরণ করুন – [email protected]