রাজস্ব বাড়াতে ১ সেপ্টেম্বর থেকে ডিএনসিসিতে চিরুনি অভিযান

আতিক

রাজস্ব আদায় বাড়াতে Septemberাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে কম্বিং ক্যাম্পেইন শুরু করতে যাচ্ছে। নাগরিক পরিষেবা ও উন্নয়ন কার্যক্রম যাতে আর্থিক স্বনির্ভরতা অর্জন করে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে যায় সেজন্য করের হার বাড়িয়ে না দিয়ে করের জাল বাড়ানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

১ সেপ্টেম্বর থেকে ডিএনসিসির জোন -২ (মিরপুর) এবং জোন -৫ (কাওরান বাজার) এর সবকটি ওয়ার্ডে মাসব্যাপী চূড়ান্ত অভিযান শুরু হবে। পরে ডিএনসিসির অন্যান্য অঞ্চলে এই কম্বিং অপারেশন পরিচালিত হবে।

বিষয়টি Dhakaাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আ স ম মামুন জানিয়েছেন।

জানা গেছে যে এই প্রচারের মূল লক্ষ্য করের পরিধি বাড়ানো; কর থেকে বঞ্চিত হোল্ডিং বা সংস্থা বাদে; রাজস্ব বিভাগের কার্যক্রমে ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি; রাজস্ব বিভাগের কার্যক্রমে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা এবং জনগণকে কর প্রদানে উত্সাহিত করা।

চূড়ান্ত প্রচারে নন-ট্যাক্স হাউস, স্থাপনা এবং সদ্য নির্মিত ফ্ল্যাট-হাউসগুলি ইনস্টলেশন করের আওতায় আনা হবে। তদতিরিক্ত, বাণিজ্যবিহীন বাণিজ্যিক সংস্থাগুলি চিহ্নিত করা হবে এবং আইনত আইনত বাণিজ্যিক লাইসেন্সের আওতায় আনা হবে এবং মেয়াদোত্তীর্ণ বাণিজ্য লাইসেন্স দ্বারা পরিচালিত বাণিজ্যিক সংস্থাগুলি চিহ্নিত ও নবায়ন করা হবে।

প্রচারটি সুচারুভাবে পরিচালনার জন্য ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলরের যুগ্ম আহ্বায়ককে নিয়ে প্রতিটি ওয়ার্ডে ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্য সচিব হিসাবে একজন উপকারী অফিসার দায়িত্ব পালন করবেন। এই কমিটি শুল্ক ছাড়ের বাড়িগুলি এবং লাইসেন্সবিহীন ব্যবসায়ের বাণিজ্য সনাক্ত করবে।

এই কম্বিং অপারেশন সফল করতে মেয়র সোমবার বিকেলে গুলশান ডিএনসিসি নগর ভবনে ড। আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে একটি প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আতিকুল ইসলাম সভায় বলেছিলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশে লোকেরা ঘরে বসে কর দিতে পারবেন। 2021 সালের 1 জানুয়ারি থেকে নগরবাসী ডিএনসিসি আঞ্চলিক কার্যালয়ে না গিয়ে ঘরে বসে অনলাইনে সমস্ত ধরণের ডিএনসিসি ট্যাক্স দিতে পারবেন। চূড়ান্ত অভিযানের লক্ষ্য হ’ল কর বাড়ানো, কর বাড়ানো নয়। মোট রাজস্ব বৃদ্ধি পেলে নাগরিক সেবার মানও আরও উন্নত হতে পারে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী ড। আবদুল হাই, সচিব রবীন্দ্র শ্রী বড়ুয়া, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবদুল হামিদ মিয়া, জোন -২ এবং জোন -৫ এর ওয়ার্ড কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

এএস / বিএ / জেআইএম