শত চেষ্টা করেও মসজিদটি রক্ষা করা গেল না

jagonews24

শত চেষ্টা করেও মসজিদটি বাঁচানো যায়নি। যমুনার স্রোতের কারণে শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার চঙ্গাছা ইউনিয়নের পান্থকুড়ি গ্রামের মসজিদটি নদীর তলদেশে ভেসে যায়।

স্থানীয় জল উন্নয়ন বোর্ড বালু ব্যাগ ফেলে মসজিদটি রক্ষার চেষ্টা করেছিল কিন্তু ব্যর্থ হয়েছিল। এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম জানান, জুলাই মাসে মসজিদটি ধসে পড়ে। তখন বালুব্যাগ ফেলে মসজিদটি রক্ষার চেষ্টা করা হয়েছিল। তিন দিন ধরে যমুনা নদীর জল উপরের প্রান্ত থেকে নেমে আসা পাহাড়ের opালে .ুকতে শুরু করে। কাজিপুর পয়েন্টে নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলস্বরূপ, মসজিদটি যমুনার শক্তিশালী স্রোতে ভেসে যায়।

জুলাই মাসে বন্যায় সদর উপজেলার ছোঙ্গাছা ইউনিয়নের দেড়শো মিটার শিমলা স্পার বাঁধ ভেসে যায়। একই সাথে কয়েক মুহূর্তের মধ্যে কয়েকশো ঘরবাড়ি, বাসস্থান এবং গাছপালা ভেসে গেছে। এ সময় মসজিদটি ধ্বংসের মুখোমুখি হয়েছিল।

ইউসুফ দেওয়ান রাজু / এএম / এমকেএইচ

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ, বেদনা, সংকট, উদ্বেগ নিয়ে সময় কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজই এটি প্রেরণ করুন – [email protected]