শিশুকে অপহরণের পর হত্যা, ৫ জনের ফাঁসি

জয়পুরহাট

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলায় আড়াই বছর বয়সী শিশুকে অপহরণ করে হত্যা মামলায় পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত।

সোমবার (12 অক্টোবর) দুপুরে জয়পুরহাট মহিলা ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো। রুস্তম আলী রায় দিয়েছেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- পাঁচবিবি উপজেলার রশিদপুর মোলান গ্রামের উত্তম কুমার সরকার (২৯), বীরেন চন্দ্র বর্মণ বীরেশ (৩)), সন্তেশ সরকার (২৮), মোস্তাফিজুর রহমান (৩৮) এবং ওবায়দুল ইসলাম (২৮)। বিচারক মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত মৃত্যুদণ্ডের প্রাপ্তিতে ঝুলিয়ে অভিযুক্তদের ফাঁসি কার্যকর করার আদেশ দেন।

মামলার ফাইল অনুসারে, ২২ শে ডিসেম্বর, ২০১৫, রাশেদপুর উপজেলার মোলান গ্রামের পরেশ চন্দ্রের আড়াই বছরের মেয়ে আরাধা রানী তার বাড়ির কাছে খেলছিল।

দণ্ডপ্রাপ্তরা খেলাধুলার সময় শিশুটিকে অপহরণ করার পরে মুক্তিপণ দাবি করেন। মুক্তিপণ না পেয়ে শ্বাসরোধের পরে তারা শিশুটির মরদেহ রশিদপুর মোলান বাজারের একটি পুকুরে ফেলে দেয়। এ ঘটনায় সন্তানের বাবা পরেশ চন্দ্র বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন।

পরে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে উত্তম কুমার, বীরেন চন্দ্র ও ওবায়দুল আদালতে ১ section৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছিলেন। ২০১ 10 সালের ১০ মার্চ তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতে পাঁচ দোষীকে অভিযুক্ত করে একটি অভিযোগপত্র জারি করেন। সোমবার 19 জনের সাক্ষ্য শুনে বিচারক রায় দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, আদালত প্রাথমিকভাবে অপহরণ মামলায় পাঁচ জনকে এবং প্রত্যেককে তিন হাজার টাকা জরিমানা আদায় না করার জন্য পাঁচজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং প্রত্যেককে আরও দু’বছর সাজা দিয়েছে। উত্তম কুমার সরকারকে মৃত্যুদণ্ডের মামলায় পলাতক ও জামিনে জামিনে থাকা একই আসামীকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও পাঁচ বছরের কারাদণ্ড এবং আরও তিন বছরের কারাদন্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে দণ্ডবিধি 302।

রাশেদুজ্জামান / এএম / পিআর

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। আনন্দ, বেদনা, সংকট, উদ্বেগ নিয়ে সময় কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজ পাঠান – [email protected]