স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে বিসিকের হেমন্ত মেলা

বিসিসিক

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে, সমস্ত প্রদর্শনী প্রায় সাত থেকে আট মাস বন্ধ ছিল। ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উদ্যোক্তারা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। ইতোমধ্যে বিএসআইসিসহ তৈরি পোশাক কারখানার সকল শিল্প খোলার কাজ শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে গণপরিবহন চালু করা হয়েছে।

অধিকন্তু, স্বাস্থ্য বিধি মেনে ব্যবসা চালু করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গে, ছোট ও কুটির শিল্পপতিরা মেলাটি চালুর জন্য বিসিকের কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করছেন। ফলস্বরূপ, বিএসআইসি জাতির পিতার কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে পাঁচ দিনের শারদীয় মেলার আয়োজন করে। বিএসআইসি ভবনে আয়োজিত মেলায় প্রায় 60০ টি ছোট ও কুটির শিল্পপতি অংশ নিয়েছিলেন।

রবিবার (১৮ অক্টোবর) বিসিকের চেয়ারম্যান মো। মোশতাক হাসান প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে ‘হেমন্ত মেলা ১৪২26 এবং কারুশিল্প প্রদর্শনী’-এর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিসিকের পরিচালক (বিপণন, নকশা ও কারুশিল্প)। আলমগীর হোসেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান ডিজাইনার জেসমিন নাহার বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিসিকের চেয়ারম্যান ড। মোশতাক হাসান ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের ব্যবসায়ী, ক্রেতা ও বিক্রেতাদের যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ক্ষুদ্র, কুটির, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উদ্যোক্তারা করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাব দ্বারা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে উদ্যোক্তাদের ক্ষতি বিবেচনা করে মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

বিসিসিক -২

বর্তমানে রাজধানীর স্টলগুলি স্বাস্থ্যকর নিয়ম মেনেই উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। এছাড়া বাস, ট্রেন, লঞ্চ, ব্যবসা সবই চালু হয়ে গেছে। বিএসসিআইসি স্বাস্থ্যবিধি নিয়ম মেনে মেলার আয়োজন করেছে, যাতে উদ্যোক্তারা তাদের পণ্য বিপণনের মাধ্যমে কিছু লোকসানের ক্ষতি করতে পারে। এ ছাড়া বিএসআইসির চেয়ারম্যান মুখোশ পরার পরে সাধারণ মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।

পরিচালক (অর্থ) স্বপন কুমার ঘোষ, পরিচালক (শিল্প উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ) উপস্থিত ছিলেন। খলিলুর রহমান, বিসিক সচিব মো। মফিদুল ইসলাম, মহাব্যবস্থাপক (বিপণন) আখিল রঞ্জন তারাফদার, উপ-মহাব্যবস্থাপক (গবেষণা) গুলশান আরা বেগম, আইসিটি সেল চিফ ইঞ্জিনিয়ার মো। দেলোয়ার হোসেন, ম্যানেজার (tণ প্রশাসন) জিএম রব্বানী তালুকদার এবং বিসিকের seniorর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

বিসিসিক -২

মেলার স্টলে রয়েছে বিভিন্ন হস্তশিল্প ও কুটির শিল্প। তদুপরি, বিসিকের প্রশিক্ষণার্থীরা তৈরি হস্তশিল্প এবং কুটির শিল্পগুলি প্রদর্শনীতে প্রদর্শিত হচ্ছে। মেলাটি প্রতিদিন সকাল দশটা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এমইউএইচ / বিএ / পিআর

করোনার ভাইরাস আমাদের জীবন বদলে দিয়েছে। সময় আনন্দ এবং দুঃখে, সঙ্কটে, উদ্বেগে কাটায়। আপনি কিভাবে আপনার সময় কাটাচ্ছেন? জাগো নিউজে লিখতে পারেন। আজ পাঠান – [email protected]