হজ পালন : সুশৃঙ্খল-নিরাপদ দূরত্বের নজরকাড়া ছবিতে বিস্ময়

হজ

হজ ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের একটি। এই ধর্মীয় বিধি পালনের জন্য প্রতিবছর সৌদি আরবে জড়ো হন লাখ লাখ ইসলামের অনুসারী। প্রতিবছর ২০ লক্ষেরও বেশি মুসলমান হজে অংশ নেন। তবে, এবার মহামারী করোনভাইরাস (কোভিড -১৯) কারণে প্রসঙ্গটি ভিন্ন। এই মারাত্মক ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে হজ খুব সীমিত আকারে পালন করা হচ্ছে। এবার সৌদি সরকার এই ধর্মীয় বিধি অনুসরণ করার জন্য মাত্র এক হাজার নাগরিককে সুযোগ দিয়েছে।

বুধবার থেকে হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। তবে সৌদি সরকার হজ চলাকালীন বিশ্বব্যাপী মহামারী মহামারী করোনভাইরাস (ক্যাভিড -১৯) থেকে রক্ষার জন্য সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। হজের জন্য মনোনীত প্রত্যেকের করোনার পরীক্ষা করা হয়েছে। হজ শুরুর আগে দুটি পদক্ষেপে কোয়ারানটাইন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। হজ অংশগ্রহণকারী এবং আয়োজকদের অবশ্যই বাধ্যতামূলক মাস্ক পরতে হবে। রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রসমূহের মতে, এই বছর হজের সময় কাবা ছোঁয়া বা চুম্বন নিষিদ্ধ থাকবে। হজের প্রতিটি কাজের এক ব্যক্তির থেকে অন্য ব্যক্তির দৈহিক দূরত্ব হবে 1.5 মিটার (পাঁচ ফুট)। তাওয়াফ, নামাজ, সাঁইয়ের প্রতিটি কাজে এই দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। এ ছাড়া মিনা, আরাফাহ ও মুজদালিফায় তীর্থযাত্রীদের অবস্থান ২ আগস্ট পর্যন্ত স্থির থাকবে।

হজ

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হজ্বের জন্য জড়ো হওয়া ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা পবিত্র মসজিদ (কাবা) থেকে প্রায় নয় কিলোমিটার দূরে মিনায় পৌঁছেছিলেন। মার্কিন মিডিয়া সিএনএন-তে প্রকাশিত একটি ছবি অনুযায়ী, তীর্থযাত্রীরা সুশৃঙ্খলভাবে কাবা প্রদক্ষিণ করছে, দুটি বিরামবিহীন সাদা কাপড় এবং মুখোশ পরে এবং একটি নির্দিষ্ট শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখেছে। মাথায় রঙিন ছাতা। তারা একটি নির্দিষ্ট দূরত্বে চিহ্নিত একটি রেখার সাথে প্রদক্ষিণ করছে। তবে অন্যান্য বছর এখানে প্রচুর ভিড় আছে। পবিত্র কাবা ছোঁয়ার জন্য তীর্থযাত্রীদের লড়াই করতে হবে।

হজ

এবার সৌদি সরকার করোনার সংক্রমণ এড়াতে বিদেশীদের হজে অংশ নেওয়া নিষিদ্ধ করেছে। যাঁরা হজের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন (সৌদি আরবে বসবাসকারী বিদেশী এবং সৌদি নাগরিক) তাদের বয়স 20 থেকে 50 বছরের মধ্যে।

হজ

বুধবার সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়, প্রতিরোধমূলক স্বাস্থ্য সহকারী উপমন্ত্রী মো। আবদুল্লাহ আসিরি এবার হজ সম্পর্কে বলেছিলেন, “আমরা হজযাত্রীরা যাতে স্বাস্থ্যের নিয়ম মেনে পবিত্র হজ করতে পারি সে জন্য আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি।” ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) সহ সকল ধরণের স্বাস্থ্য পণ্য বিনামূল্যে প্রদান করা হয়।

হজ

অন্য একটি সিএনএন ফটোতে দেখা গেছে, হুজুররা মাদুর পেতে নির্দিষ্ট দূরত্বে বসে পূজাতে লিপ্ত রয়েছেন।

হজ

এ প্রসঙ্গে ডাঃ আসিরি বলেছিলেন, “হজের কিছু নিয়ম মেনে চলার বাধ্যবাধকতা রয়েছে যা আমরা চাইলেও এক হতে আলাদা করতে পারি না।” তাদের এক জায়গায় থাকতে হবে (নামাজের সময়)। সুতরাং আমরা স্থানগুলি এমনভাবে প্রস্তুত করেছি যাতে হজযাত্রীরা নির্দিষ্ট দূরত্বে হজ্ব করতে পারেন এবং এই জায়গাগুলিতে পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা হয়েছে। ‘

সৌদি আরবের বাইরে থেকে তীর্থযাত্রীদের আগমন না করেই 90 বছরের মধ্যে এই প্রথম এত কম পরিমাণে হজ করা হচ্ছে। তবে যুদ্ধ, বন্যা ও অন্যান্য কারণে হজ ৪০ বার বন্ধ ছিল।

এসআর / জেআইএম